চট্টগ্রামে চাঁদাবাজীর অভিযোগে এসআই আটক

চট্টগ্রাম মহানগরীতে এক বিমা কর্মকর্তাকে জিম্মি করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে শিল্প পুলিশের এক সাব-ইন্সপেক্টর (এস আই)কে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর কোতোয়ালী থানা পুলিশ মাহবুবুর রহমান নামের এই পুলিশ কর্মকর্তাকে আটকের পর তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে শিল্প পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

তবে চাঁদাবাজীর সময় হাতে নাতে আটক করা হলেও রহস্যজনক কারণে তাকে গ্রেফতার বা কোনো মামলা দায়ের করেনি পুলিশ। ঘটনার শিকার বিমা কর্মকর্তা মামলা করতে চাইলেও পুলিশ সেই মামলা গ্রহণ করেনি বলে অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশ ও ঘটনার শিকার বিমা কর্মকর্তার সূত্রে জানা যায়, সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের কর্মকর্তা জিয়াউল করিম বুধবার গভীর রাত দেড়টার দিকে নগরীর সুগন্ধায় তার কার্যালয় থেকে বেরিয়ে হালিশহরে বাসায় যাওয়ার পথে শিল্প পুলিশের এসআই মাহবুব ও তার সহযোগী ফরিদ জিয়াউল করিমের পথরোধ করে।

এ সময় জিয়াউল করিমের নিকট মাদক আছে বলে উল্লেখ করে তাকে একটি সিএনজি অটোরিক্সায় তুলে চট্টগ্রাম রেলস্টেশন এলাকায় নিয়ে যায়। এর পর এই বীমা কর্মকর্তাকে স্টেশন সংলগ্ন হোটেল মার্টিনের একটি কক্ষে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখে এবং ছাড়া পেতে হলে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। পরদিন ব্যাংক থেকে টাকা তুলে দেওয়া হবে বলে পুলিশ কর্মকর্তাকে আশ্বস্ত করেন জিয়াউল করিম।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে দুই পুলিশ সদস্য বিমা কর্মকর্তা জিয়াউলকে নিয়ে টাকা আদায় করতে জুবলী রোডে ডাচ বাংলা ব্যাংকের একটি শাখায় যায়। এই সময় ওই জিয়াউল কৌশলে মোবাইল ফোনে তার স্বজন এবং কোতায়ালী থানা পুলিশকে ঘটনা জানাতে সক্ষম হন।

খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানা পুলিশ দ্রুত ডাচ বাংলা ব্যাংকের জুবিলী রোড শাখায় অভিযান চালিয়ে পুলিশের এসআই মাহবুবুর রহমান ও ফরিদকে হাতে নাতে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

পরে ঘটনাটি উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের জানানো হলে শিল্প পুলিশ ও মহানগর পুলিশ পরস্পরের মধ্যে ঘটনাটি সমঝোতা করে।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে রাইজিংবিডিকে জানান, আটক মাহবুবকে শিল্প পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি বলে ওসি জানান।

You Might Also Like