ফ্রান্সে লাঞ্ছিত হলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ফ্রান্সে নিজ দলের নেতাকর্মীদের হাতে লাঞ্ছিত হলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। সোমবার প্যারিসের ভুশনে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা ও ইফতার মাহফিলে ক্ষোভ আর তোপের মুখে পড়েন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

দুতাবাসে প্রধানমন্ত্রীর নিয়োগকৃত ১ম সচিব আনিসা আমিন বিরুদ্ধে অভিযোগ রাষ্ট্রদূত আমলে নেননি বলে অভিযোগ করতে গিয়ে মন্ত্রীর সঙ্গে এক পর্যায়ে তর্কে জড়িয়ে পড়েন ফ্রান্স আওয়ামী লীগেরে যুগ্ন সাধারন সম্পাদক দেলওয়ার হোসেন কয়েছ।

তখন তিনি বলেন বিনা ভোটে মন্ত্রী হয়েছেন, আপনার তো আরামে আছেন। আপনারা জনগণের প্রতিনিধিত্ব করেন না। এ সময় মন্ত্রী বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন। কয়েছ আরো বলেন কিভাবে এমন একজন বেয়াদব মহিলাকে প্রধানমন্ত্রী এখানে নিয়োগ দিলেন সেটা তার বুঝে পড়ে না। রাষ্ট্রদূতকে অনেকবার অভিযোগ করলেও তিনি কোন পদক্ষেপ নেন নি। এ সময় কয়েক জন আওয়ামী কর্মী সাংবাদিকদের ক্যামেরা বন্ধ করার জন্য বলেন।

অন্যদিকে রাষ্ট্রদূত বলেন আনিসা আমিন একজন সৎ কর্মকর্তা। তার বেড কোন রেকর্ড তার চোখে ধরা পড়েনি। ধরা পড়লে তিনি ব্যবস্থা নিতেন। এদিকে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা বলেছেন, এভাবে মন্ত্রী মহোদয়কে লাঞ্ছিত করা ঠিক হয় নি। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে সেটা লিখিত আকারে প্রমাণসহ দিতে হয়। এভাবে মিডিয়ার সামনে মন্ত্রী মহোদয়কে অপমান করে তিনি সরকার এবং আওয়ামী লীগের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করেছেন। দেলওয়ার হোসেন কয়েছ অনেক দিন যাবৎ দলীয় শৃংখলা ভংঙ্গ করে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সুনাম ক্ষুন্ন করে আসছেন। তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। তিনি একবার অন্যায় অবদার নিয়ে দূতাবাসে গেলে দূতাবাস কর্তৃপক্ষ সেটি গ্রহণ না করায় তিনি দূতাবাস কর্তৃপক্ষ এর উপর ক্ষেপে আছেন বলে জানা যায়।

আওয়ামী লীগের সিনিয়র এক নেতা বলেন এখান অনেক সাংবাদিক আছেন যারা বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রিপোর্ট করেন। দূতাবাস কোনো দূনীর্তি পেলে তারা নিশ্চইয় রিপোর্ট করতেন। আওয়ামী লীগের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করায় দেলওয়ার হোসেন কয়েছের শাস্তি দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ।

You Might Also Like