আটলান্টিক সিটি হাইস্কুলের টপ টেন স্টুডেন্টের তিনজনই বাংলাদেশী

আকবর হোসাইন : আটলান্টিক সিটিতে বসবাসরত বাংলাদেশী বাবা-মায়েদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় পূর্ববর্তী বছর গুলোর ন্যায় এবারও আটলান্টিক সিটি হাইস্কুলের পাঁচশত ছাত্রছাত্রীর মধ্যে টপ টেন স্টুডেন্টের তালিকায় তিনজনই বাংলাদেশী।

তবে এ তালিকায় ছেলেদের তুলনায় এগিয়ে আছে বাংলাদেশী মেয়েরা।টপটেনের তালিকার তিনজনই মেয়ে।জেরিন সুবাহ, সুবাহ করিম এবং উমামা আহমেদ এই অসামান্য গৌরব অর্জন করেছেন।প্রায় শতাধিক বাংলাদেশী ছেলেমেয়ে atlantic_city_news_3এবার আটলান্টিক সিটি হাইস্কুল থেকে স্কুল গ্যাজুয়েশান সম্পন্ন করেছে।যা অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক বেশী চট্রগ্রামের সন্দ্বীপ উপজেলার আবুল আলা মোশারফ ও আসমা কাওকারের  দ্বিতীয় সন্তান জেরিন সুবাহ বিশ্বের অন্যতম বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় ইয়েল ইউনিভার্সিটিতে বায়োফিজিক্স ও বায়োকেমিস্ট্রিতে উচ্চশিক্ষা লাভের সুযোগ পেয়েছে।তার ইচ্ছা একজন নামকরা নিউরোলজিষ্ট হওয়া।জেরিন সুবার গর্বিত পিতা মোশারফ এবং আসমা জানান তারা স্বপ্ন পূরনের কাছাকাছি এসে পৌছেছেন।

কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে মেধাবী মোশারফ আরও জানান সোনার হরিন ধরতে এসে সন্তানদেরকে উচচ শিক্ষা দেয়ার স্বপ্ন যাতে হারিয়ে না যায় তার জন্য সুশৃংখল জীবন যাপনের শিক্ষা এবং সন্তানদের  ইচ্ছাশক্তি খুবই গুরুত্বপূর্ন।কি ক্লাব ইনটারন্যাশনালের প্রেসিডেন্ট জেরিন সুবাহ পড়াশুনার পাশাপাশি আটলান্টিক

সিটি স্কুল গার্লস ল্যকরোস টিম, মুসলিম সিস্টারস ইউথ গ্রুফ অব আটলান্টিক সিটি, আটলান্টিক সিটি হাইস্কুল ল্যাটিন টিম, গিফটেঠ এন্ড টেলেন্টেড এডুকেশান একাডেমিক টিম, ন্যাশনাল অনার সোসাইটি,ফিজিকস ক্লাব, লিউ ক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠন এবং ভলেনটারী সার্ভিসের  সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।

atlantic_city_news_2বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারিতে জন্মগ্রহণকারী আব্দুর রফিক এবং ইশরাত জাহানের বড় মেয়ে সূভা করিম।সুভার বাবা আব্দুর রফিক এবং মা ইশরাত জাহান দুইজনই চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ ডিগ্রিধারী।বাবা আব্দুর রফিক চট্রগাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সময়ের দুর্দান্ত ছাত্রনেতা ছিলেন।ব্যক্তিগত

জীবনে ব্যবসায়ী আবদুর রফিক এবং মা ইশরাত জাহান আইবি আটলান্টিক সিটিতে খুবই সুপরিচিত।মা-বাবা দুজনেই শিক্ষা,সংস্কৃতি,সামাজিক এবং ভলিন্টারী কাজের পাশাপাশি বাংলাদেশ আমেরিকান লায়ন্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।মা-বাবা দুইজনের পদাংক অনুসরন করে সূভা করিম কি ক্লাব,লিউ ক্লাব,ফ্রেন্স ক্লাব, ন্যাশনাল অনার সোসাইটিসহ বিভিন্ন ভলিন্টারী অর্গানাইজেশানের সক্রিয় সদস্য।সূভা গত চার বছর ধরে আটলান্টিক কাউন্টি ফিল্ড হকি এবং উইন্টার ট্রাক টিমের সদস্য।একজন ভালATLANTIC_subah_karim সংগীত শিল্পী হিসাবে আটলান্টিক সিটিতে সে খুবই সুপরিচিত।যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম সেরা বিদ্যাপীঠ জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটিতে  বায়োলজি বিষয়ে পড়াশোনা করে ডাক্তার হতে চায় সূভা।আটলান্টিক সিটিতে বসবাসরত রাউজানের স্বনামধন্য পরিবারের সদস্য নানা ইউসুফ চৌধুরী এবং নানী খোদেজা আর্জুমান তাদের নাতনীর অসামান্য সাফল্যে খুবই আনন্দিত।।

বাংলাদেশের গাজীপুর জেলার সৈয়দ মনসুর আহমেদ ও মাতা নাজমীন সুলতানার ৩য় সন্তান রাটগারস বিশ্ববিদ্যালয়ে কমপিউটার ও ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষা লাভ করে কমপিউটার প্রকৌশলী হতে চায়।উমামার বাবা চাকরিজীবী সৈয়দ মনসুর আহমেদ ও মা নাজনীন সুলতানার সঙ্গে ২০০৭ সালে আমেরিকায় আসেন উমামা । তিন ভাইবোনের মধ্যে সবার ছোট ঊমামা ছোটবেলা থেকে পড়ালেখায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখে আসছে ।উমামার বড় ভাই বিশ্ববিখ্যাত বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান স্নাইডারে ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে atlantic_city_news_4কর্মরত।তার বড় বোন রোজেন আহমেদ ২০১৪ সালে আটলান্টিক সিটি হাই স্কুলের টপ টেন ষ্টুডেন্টের তালিকায় ছিলেন এবং বর্তমানে রাটগারস ইউনিভার্সিটিতে ইঞ্জিনিয়ার এর পড়াশোনা করছেন।জেরিন সুবাহ, সুবাহ করিম এবং উমামা আহমেদের  অভাবনীয় এই সাফল্যে সাউথজার্সিতে বসবাসরত কয়েক হাজার বাংলাদেশী আনন্দে উদ্বেলিত এবং গৌরবান্বিত।
আগামীতে জেরিন সুবাহ, সুবাহ করিম এবং উমামা আহমেদের মত অনন্য কৃত্বিতের স্বাক্ষর রেখে আমেরিকার মাটিতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সন্তানরা দেশের মর্যাদা বহুগুন বাড়িয়ে atlantic_zarinদেবে এটাই প্রবাসী সাউথজার্সীবাসীর প্রত্যাশা। জেরিন সুবাহ, সুবাহ করিম এবং উমামা আহমেদ এই অসামান্য সাফল্যের জন্য তাদেরকে অভিনন্দন  জানান বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব অব আটলান্টিক সিটির সভাপতি আকবর হোসাইন এবং সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহীন। এছাড়াও  বাংলাদেশ আমেরিকান লায়ন্স ক্লাব অব আটলান্টিক সিটি, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সি, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সাউথজার্সি ট্রাষ্টি বোর্ড, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি অব নিউজার্সি, সাউথজার্সি আওয়ামীলীগ, আটলান্টিক সিটি বেঙ্গল ক্লাবসহ অন্যান্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়ে বলেন তাদের সাফল্য দেখে আগামী বছর গুলোতে  আরও বাংলাদেশীর সন্তান  টপ টেন স্টুডেন্টের তালিকায় আসবে এটাই প্রবাসী সাউথজার্সীবাসীর প্রত্যাশা।

You Might Also Like