জাতীয় সংগীতে বাংলাদেশের বিশ্ব রেকর্ড

‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ গেয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়লো বাংলাদেশ। বিশ্বের ইতিহাসে এই প্রথম এতো বেশি মানুষের অংশগ্রহণে জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হলো। যা ইতিপূর্বে গাওয়া পৃথিবীর সব জাতীয় সংগীতের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে।

বুধবার স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের ৪৩তম বার্ষিকীতে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে রচিত হলো এই নতুন ইতিহাস।

বিশ্ব রেকর্ডের এ আয়োজনে অংশ নিতে বুধবার সকাল থেকেই জনস্রোত আসতে থাকে প্যারেড গ্রাউন্ডের দিকে। বেলা সোয়া ১১টার মধ্যেই দুই লাখ ৫৪ হাজার মানুষ স্থান করে নেয় প্যারেড গ্রাউন্ড মাঠে।

আজকের এ ঐতিহাসিক ক্ষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ, সাংসদ, সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ, বিশিষ্ট নাগরিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, সেনা সদস্য, স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, পোশাক শ্রমিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার ২ লাখ ৫৪ হাজার ৬৮১ জন মানুষ উপস্থিত হয়ে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে ঠোঁট মেলান।

এছাড়াও মাঠের বাহিরে এবং দেশের বিভিন্নস্থান থেকে রেডিও-টেলিভিশনের মাধ্যমে অংশ নেন কোটি মানুষ।  অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার ছাড়াও দেশের বিভিন্ন বেসরকারি টেলিভিশন সরাসরি সম্প্রচার করে। ফলে সকাল ১১টা ২০ মিনিটে গোটা জাতিই একসঙ্গে গেয়ে ওঠে “আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি”।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার পর উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পর দুইবার অনুষ্ঠিত হয় মহড়া। বেলা ১১টা আট মিনিটে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী। ভাষণে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়ার এই আয়োজনে অংশ নেওয়া সবাইকে ধন্যবাদ জানান শেখ হাসিনা।

স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় ঐক্য ও স্বাধীনতার চেতনা শাণিত করার লক্ষ্যে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিল সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত বছরের ৬ই মে সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত গেয়ে গিনেজ বুকে রেকর্ড  করে ভারত। ওই আয়োজনে অংশ নিয়েছিলেএক লাখ ২১ হাজার ৬৫৩ জন।

You Might Also Like