ম্যাগি এখন সিমেন্ট কারখানার জ্বালানি!

অতিরিক্ত সীসা ব্যবহার নিয়ে পুরো ভারত তোলপাড়; ম্যাগি নিয়ে বিভিন্ন মামলাও এখন পুরনো খবর। বাজার থেকে প্রায় ৪০০ কোটি টাকার ম্যাগি তুলে নিয়েছে এর প্রস্তুতকারক কোম্পানি নেসলে; এটাও মিডিয়ার দৌলতে সকলেই জানেন।

তা হলে এই বিপুল পরিমাণ ম্যাগি দিয়ে এখন কী করা হচ্ছে?

সিমেন্ট কারখানায় জ্বালানির কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে বাতিল হয়ে যাওয়া ম্যাগি!

টন টন ম্যাগির প্যাকেট নিয়ে যাওয়া হচ্ছে কর্নাটকের কালাবুরগরিতে এসিসি সিমেন্ট কারখানায়। সেখানেই ফার্নেসে পুড়িয়ে সিমেন্ট তৈরির কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। কারখানার মুখ্য নিরাপত্তা আধিকারিক আর এস বিরাদার জানান, ‘ম্যাগি ৪০ মিমি মাপে ভেঙে ফেলা হচ্ছে। পরে তা অন্যান্য জ্বালানির সঙ্গে মিশিয়ে ফার্নেসে জ্বালানো হচ্ছে।’

এর আগেই নির্দেশ অনুযায়ী সারা দেশ থেকে যত ম্যাগি জমা ছিল তা তুলে নেয় নেসলে। ৫ জুন এক ল্যাব টেস্টের রিপোর্টে জনপ্রিয় এই নুডলস-এ মাত্রতিরিক্ত সীসা এবং মনোসোডিয়াম গ্লুটামেটের উপস্থিতি মেলে। তারপরই সারা দেশে ম্যাগি নিয়ে বিভিন্ন মামলা হয়। ম্যাগির হয়ে প্রচার করার জন্য মামলায় জড়িয়ে পড়েন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও।

শুধুমাত্র কর্ণাটকের এসিসি নয়, ভারতের আরও পাঁচটি কারখানায় এই ম্যাগি জ্বালানির কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে।

You Might Also Like