বাংলাদেশে আম রপ্তানি করতে চেয়ে মমতার চিঠি

পশ্চিমবঙ্গের মালদহের আম বাংলাদেশে রপ্তানির জন্য সরকারকে চিঠি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মালদহের দুর্গাকিঙ্কর ভবনে প্রশাসনিক বৈঠক শুরুর আগে সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা বলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘আম রপ্তানি নিয়ে বাংলাদেশ সরকারকে চিঠি লেখা হয়েছে। এটা দুই দেশের আভ্যন্তরীণ বিষয়। এখানে আলোচনা করে লাভ হবে না। চাষিরা আম বিক্রি করতে পারলে আমরা খুশি হব।’

বাংলাদেশে মালদহের আম নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী চিঠি দেওয়ার খবরে খুশি জেলার আম ব্যবসায়ী ও চাষিরা। মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন জেলার ব্যবসায়ীরা।

পশ্চিমবঙ্গের ব্যবসায়ী সংগঠন সূত্রে জানা গিয়েছে, চার বছর ধরে বাংলাদেশে আম রপ্তানি বন্ধ। কারণ বাংলাদেশ সরকার আগের প্রতি কর দ্বিগুণ বাড়িয়েছে। আগে বাংলাদেশের মুদ্রায় কেজি প্রতি আমের জন্য কর লাগত সাত টাকা। চলতি বছর কেজি প্রতি আমের জন্য গুনতে হবে ৩৬ টাকা।

উদ্যান পালন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্যের এবার প্রায় দশ লাখ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয়েছে। তার মধ্যে মালদহে রয়েছে পাঁচ লাখ মেট্রিক টন। বিপুল পরিমানে আম উৎপাদন হওয়ায় মাথায় হাত পড়েছে জেলার আম চাষিদের।

বাগান থেকে চাষিদের লক্ষ ভোগ বিক্রি করতে হচ্ছে তিন থেকে চার টাকা দরে। হিমসাগার ৭ থেকে ৮ টাকা, ল্যাংড়া ৬ থেকে ৭ টাকা দরে। লোকসানের মুখ দেখতে হচ্ছে চাষিদের। তাই জেলার আম চাষি ও ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশে আম রপ্তানির দিকে তাকিয়ে ছিল।

জেলার ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক উজ্জ্বল সাহা বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী আম রপ্তানি নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনা করায় আমরা খুব খুশি। কারণ, বাংলাদেশে আম রপ্তানি না হলে চাষি এবং ব্যবসায়ীদের ক্ষতির মুখে পড়তে হবে।’

You Might Also Like