ওজন কমাতে গিয়ে মারা গেলেন তেলুগু অভিনেত্রী

মাত্র একত্রিশ বছরেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন জনপ্রিয় তেলুগু অভিনেত্রী আরতি আগরওয়াল। তার ম্যানেজার ঊমা শংকর জানিয়েছেন, শনিবার ভোর রাতে আমেরিকার আটলান্টায় মৃত্যু হয়েছে তার।

ঊমা শংকর আরও জানান, মাস খানেক আগে শ্বাসকষ্টের সমস্যার জন্য একটি অস্ত্রোপচার করেছিলেন তিনি। তার পর সুস্থই ছিলেন। কিন্তু, শুক্রবার গভীর রাতে হঠাৎ তার বুকে যন্ত্রণা অনুভূত হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পথেই মৃত্যু হয় জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর।

শনিবার দক্ষিণী এই অভিনেত্রীর অকস্মিক মৃত্যুর খবরে শোকে ভেঙে পড়েন টলিউডের কলাকুশলীরা। এত কম বয়সে প্রচুর ছবিতে কাজ করছেন আরতি আগারওয়াল। সম্প্রতি আমেরিকা থেকে ফিরে নতুন কয়েকটি ছবিতে সই করেছিলেন তিনি।

এক ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যায়, শরীরের বাড়তি মেদ ঝরাতে আমেরিকায় গিয়ে লাইপোসাকশান করিয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। আর এর কারণেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

দক্ষিণে অভিনেত্রী হিসেবে জনপ্রিয় হলেও, তার শুরুটা হয়েছিলো হিন্দি ছবি দিয়ে। বলিউডে তার প্রথম ছবি ‘পাগলপণ’। তার পরেই চলে যান টলিউডে। তিনি তেলগুভাষী না হলেও সাফল্যের সঙ্গেই অভিনয় করেছেন চিরঞ্জীবী,নন্দমুরী বালকৃষ্ণ, নাগার্জুনা, রবি তেজার মতো তারকাদের সঙ্গে।

ফিলাডেলফিয়ায় একটি অনুষ্ঠানে তাঁকে মঞ্চে তুলে আনেন বলিউড অভিনেতা সুনীল শেঠি। আরতির পারফরম্যান্সে মুগ্ধ হয়ে সিনেমাকে কেরিয়ার হিসেবে বেছে নেওয়ার জন্য তাঁর বাবা-মাকে উত্সাহিত করেন সুনীল শেঠি। ১৬ বছর বয়সে পাগলপন সিনেমায় তাঁর অভিযেক হয়।

একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, ২০০৫-এ তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। ২০০৭-এ বিয়ে হয় তাঁর। কিন্তু কয়েক সপ্তাহ পরেই বিবাহবিচ্ছেদ হয় এবং এরপর মার্কিন মুলুকে বাবা-মার কাছে ফিরে যান তিনি। সূত্র: অনলাইন

You Might Also Like