বন্দুক ছেড়ে আলোচনায় বসুন : সরকারকে খালেদা জিয়া

সরকারকে বন্দুক ছেড়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন, ১৯ দলীয় জোট নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যদি মনে করেন বন্দুক দিয়ে ক্ষমতায় থাকবেন তাহলে পরিণতি হবে আরো খারাপ।

সোমবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে গুলশানের নিজ রাজনৈতিক কার্যালয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা জাতীয় পার্টির ৬৮ নেতাকর্মী বিএনপিতে যোগদান শেষে বেগম খালেদা জিয়া সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগ জোর করে সরকার গঠন করে ক্ষমতায় এসেছে বলেও এসময় মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

আবারো সরকারকে অবৈধ আখ্যায়িত করে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেন, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটই হয়নি। এই নির্বাচনে ১৫৩ জন এমপি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। ১৪৭টি আসনে ভোট হয়েছে। এসব আসনের ৫৭টি কেন্দ্রে ভোটই পড়েনি।

তিনি বলেন, বর্তমানে উপজেলায় নির্বাচন চলছে। এই নির্বাচনে ভোটের উৎসব চলছে। নারী-পুরুষের দীর্ঘ লাইন দেখা যায় কেন্দ্রে। এ রকম লাইন কী ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে দেখেছেন? তাহলে ওটা কীসের নির্বাচন ছিল।

বেগম জিয়া বলেন, এই জন্যই আমরা বলি এই সরকার অবৈধ, অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক। তারা যতই সংবিধানের দোহাই দিক। কীভাবে সাংবিধানিক সরকার হবে তারা? তারা তো নির্বাচিতই হয়েছে অগণতান্ত্রিকভাবে।

তিনি বলেন, এবার অনেক নতুন ভোটার ছিল। একতরফা নির্বাচনের কারণে তারা ভোট দিতে পারেনি। তারা ভোটের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে। তাহলে এই সরকারকে কীভাবে গণতান্ত্রিক সরকার বলা যাবে?

সরকার কৃষি খাতে ব্যাপক উন্নয়নের বুলি আওড়ালেও বাস্তবে তত উন্নয়ন হয়নি মন্তব্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, এই সরকারের মুখে শুধু বড় বড় কথা। মিথ্যা কথা। আমরা (বিএনপি) কৃষকদের জন্য যা করেছি। এরা (আওয়ামী লীগ) সে অনুপাতে কিছুই করেনি।

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, আমাদের সময় চাল, ডাল, সারসহ যাবতীয় কৃষি সরঞ্জামের দাম কম ছিল। আমরা কৃষির ওপর অনেক বেশি জোর দিয়েছিলাম। জিয়াউর রহমানও এই খাতে বেশি জোর দিয়েছিলেন। কারণ, আমাদের লক্ষ্যই ছিল খাদ্যে স¦য়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করা। আমরা অনেকটা এগিয়েও গিয়ছিলাম।

You Might Also Like