থানায় শ্রমিকলীগের হামলা, ১০ পুলিশসহ আহত ২০

ভোলার চরফ্যাশনে শ্রমিক লীগ নেতাসহ পাঁচজনকে আটকের প্রতিবাদে শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা থানায় হামলা করেছে। এতে তাদের সঙ্গে সংঘর্ষে ১০ পুলিশসহ ২০ জন আহত হয়েছেন। রবিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, জমি দখল, চাঁদাবাজি, চুরি-ডাকাতি ও খুনসহ ভিন্ন অপরাধের অভিযোগে শনিবার মধ্যরাতে থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্মসম্পাদক আবুল কাশেম বাতান, তার শ্যালক ফারুক, ভাতিজা মঞ্জু বাতান, সাইদ ও শরীফকে আটক করে।

এ ঘটনার জের ধরে রবিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কাশেম বাতানের স্বজন ও সমর্থকরা থানায় হামলা করে এবং সদরে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে।

পরে লালমোহন, চরফ্যাশন, দক্ষিণ আইচা ও শশীভূষণ থানা পুলিশ এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ সময় ১০ পুলিশসহ ২০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে কাশেম বাতানের বড়ভাই জিন্নাগড় ইউপি সদস্য কাজল বাতানকে চরফ্যাশন হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়।

পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

চরফ্যাশন থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পলিশ পরিদর্শক বেলাল জানান, সকালে বেলা কাশেম বাতানের বড়ভাই কাজল বাতানের নেতৃত্বে মিছিল বের করা হয়। পরে মিছিল থেকে থানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে হামলা চালায় তারা। এসময় পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়। এতে ১০ পুলিশসহ ২০ জন আহত হয়।

চরফ্যাশন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাসার জানান, আটকদের বিরুদ্ধে উপ-মন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে জমি দখল, চাঁদাবাজি, চুরি-ডাকাতি ও খুনসহ ভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগগুলো যাচাই বাচাই করা হচ্ছে।

You Might Also Like