থাইল্যান্ডে অভিযানে অর্ধশত মানব পাচারকারী গ্রেপ্তার

সমুদ্রপথে বাংলাদেশি ও মিয়ানমারের রোহিঙ্গা অভিবাসীদের মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডে পাচারের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৮১ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে থাইল্যান্ড।

অভিযান চালিয়ে এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সন্দেহভাজন ৫১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বাকি ৩০ সন্দেহভাজন পাচারকারীকে ধরতে সঙ্খলা, সাতুন ও রানোং প্রদেশে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

থাইল্যান্ডভিত্তিক অনলাইন সংবাদপত্র ‘দ্য নেশন’ জানায়, শনিবার পুলিশ মানব পাচারকারীদের শিবির শনাক্তে ১২ রোহিঙ্গা অভিবাসীকে সঙ্খলা প্রদেশের সাদাও জেলার গ্লাস মাউন্টেন এলাকায় নিয়ে যায়।

পাহাড়ি জঙ্গলে শিবির স্থাপন করে ওই অভিবাসীদের আটক রেখেছিল মানব পাচারকারী চক্রের সদস্যরা। অভিবাসীরা বন্দি-শিবিরের পথ মনে রাখতে পেরেছিলেন। ওই বন্দি-শিবিরগুলোর বিস্তারিত তথ্য তারা পুলিশকে দেন। পুলিশকে ওই শিবিরগুলোতে নিয়ে যান অভিবাসীরা এবং সন্দেহভাজনদের চিহ্নিতও করেন তারা।

পুলিশ বিভিন্ন বন্দি-শিবিরের ছবি তুলে সেগুলো সন্দেহভাজন মানব পাচারকারীদের দেখায়। তারা তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ স্বীকার করে এবং কোন শিবিরে তারা কাজ করতো, ওই ছবিগুলোর মধ্য থেকে সেটি শনাক্ত করে।

সম্প্রতি ২ শতাধিক অভিবাসীসহ একটি বোট উদ্ধার করে মিয়ানমার নৌবাহিনী। ওই বোটের মালিক এক থাই নাগরিককেও সম্পৃক্ততার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ৫২ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে দেশটির বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনে আটক রাখা হয়েছে। তবে কখন তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে কি ধরনের অভিযোগ গঠন করা হয়েছে, তা জানা যায়নি।

থাই পুলিশ তিনটি প্রদেশের সম্ভাব্য মানব পাচারের রুটে ৬৪টি চেকপয়েন্ট স্থাপন করেছে যেখানে দায়িত্ব পালন করছেন ৫০০ পুলিশ কর্মকর্তা।

You Might Also Like