ইউক্রেইন সঙ্কট নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া বৈঠক

ইউক্রেইন সঙ্কট নিয়ে পূর্ব-পশ্চিম উত্তেজনা কমাতে বৈঠকে বসছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। সঙ্কট ঘনীর্ভত হওয়ার পর এই প্রথম মুখোমুখি বৈঠক করবেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

ইউক্রেইনের ক্রিমিয়া অঞ্চলে সেনা মোতায়েনের জন্য মস্কোকে অভিযুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। একে আগ্রাসী তৎপরতা বলে বর্ণনা করেছে তারা। ক্রেমলিন এ দাবি অস্বীকার করেছে।

তীব্র মতবিরোধ সত্ত্বেও দুপক্ষই সংলাপ শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছে। প্যারিসে লেবানন বিষয়ক দীর্ঘ-পরিকল্পিত এক সম্মেলনের ফাঁকে কেরি এবং ল্যাভরভ বেঠকে বসবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কেরি-ল্যাভরভ বৈঠকের পাশাপাশি ব্রাসেলসে নেটো এবং রাশিয়ারও আলোচনা চলবে।

ক্রিমিয়ায় রাশিয়া এবং ইউক্রেনের সেনাদের মধ্যেকার অচলাবস্থা থেকে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়া এবং পূর্ব-ইউক্রেইনে রাশিয়ার আগ্রাসন চালানো নিয়ে উদ্বেগের মধ্যেই এ আলোচনায় বসবে দুপক্ষ।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ল্যঁরা ফেবিয়াস বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা ব্রাসেলেসে বৃহস্পতিবারের বৈঠকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত নিতে পারে। রাশিয়া এর মধ্যে সেনা না সরালে এ সিদ্ধান্ত হতে পারে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মঙ্গলবার ইউক্রেইনের ক্রিমিয়ায় হামলা চালানোর অধিকার আছে বলে ঘোষণা করেন। তবে পরে সুর নরম করে তিনি এও বলেন যে, কেবলমাত্র শেষ অস্ত্র হিসাবেই সেখানে সামরিক শক্তি প্রয়োগ করবেন তিনি।

ক্রিমিয়ার নিয়ন্ত্রণে রেখেছে রাশিয়ার সেনাবাহিনী। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সেখান থেকে সেনাদেরকে ফিরিয়ে নেয়ার কোনো লক্ষণ দেখাননি।

ওয়াশিংটনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ইউক্রেইনে রাশিয়ার বৈধ স্বার্থের কথা স্বীকার করলেও বলেছেন, এর কারণেই পুতিন সেখানে সামরিকভাবে আগ্রাসন চালানোর অধিকার পেতে পারেন না।

You Might Also Like