সালাহ উদ্দিনকে দেশে আনতে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন স্ত্রী হাসিনা

সালাহ উদ্দিন আহমেদকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন স্ত্রী হাসিনা আহমেদ।

বুধবার দুপুরে গুলশানের ৭২ সড়কের ৭ নং বাসায় সাংবাদিকদের কাছে হাসিনা আহমেদ বলেন, ‘‘ ভিসার জন্য সকালেই আবেদন জমা দিয়েছি। হাইকমিশনে আমাদের লোকজন কাজ করছেন। ভিসা আমার হাতে পেলেই আমি শিলং রওনা হবো।’’

‘‘ ভিসার আবেদনপত্রে সড়ক ও আকাশ পথ উল্লেখ করা হয়েছে। যেটাতে সুবিধা হবে, সেই পথেই যাবো।’’

শিংল থেকে সালাহ উদ্দিন আহমেদকে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে যেসব আইনি জটিলতা রয়েছে, সে বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘আমরা সেখানে পৌঁছানোর পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো। এ ব্যাপারে আমি সরকারের সহযোগিতা কামনা করছি।’’

দীর্ঘ দুই মাসের অধিক সময়ের ‘নিখোঁজ’ থাকার পর ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ের একটি মানসিক হাসপাতাল থেকে মঙ্গলবার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ তার স্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার পর এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা ঝড় উঠে।

স্বামীর কাছে দেখা করতে সকাল ৯টায় ভারতীয় হাইকমিশনে আবেদনপত্র জমা দেয়া হয়। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান ভিসা দ্রুত করতে দূতাবাসে সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

জানা গেছে, সালাহউদ্দিনের স্ত্রী হাসিনা আহমেদ ও তার ভগ্নিপতি মাহবুবুল করীম বুলবুলসহ চার জনের নামে ভিসার আবেদন করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের হাসিনা আহমেদ বলেন, ‘‘ মঙ্গলবারের পর আর তার স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। আমরা জানতে পেরেছি, শিলংয়ের মিমহান্স মেন্টাল হাসপাতাল থেকে তাকে ( সালাহউদ্দিন আহমেদ) সিভিল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।’’

হাসিনা সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘ আমার স্বামীকে অক্ষত অবস্থায় আমরা ফিরে পেয়েছি, এজন্য দেশবাসীসহ সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’’

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে সালাহ উদ্দিন আহমেদের প্রেস সচিব সাফওয়ানুল করীম ও ব্যক্তিগত আলোকচিত্রী নুরুল ইসলাম হেলালী উপস্থিত ছিলেন।

গত ১০ মার্চ রাতে উত্তরার একটি বাসা থেকে র‌্যাব ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিনকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেছে পরিবার।

You Might Also Like