‘আমেরিকা-ইসরাইলের হয়ে ইয়েমেনে লড়ছে সৌদি আরব’

আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের পক্ষ নিয়ে ইয়েমেনের বিরুদ্ধে প্রক্মি যুদ্ধ শুরু করেছে সৌদি আরব। এ কথা বলেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী’র সামরিক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল ইয়াহিয়া রহিম সাফাভি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র দেশগুলো কি করে অন্য দেশে সন্ত্রাস উস্কে দেয় তা তুলে ধরতে যেয়ে জেনারেল সাফাভি বলেন, তারা নিজেরা এ জাতীয় যুদ্ধে সরাসরি জড়িয়ে পড়ে না বরং অন্য দেশ বা সন্ত্রসীগোষ্ঠীগুলোকে এ কাজে নামায়।

মুসলমান দেশগুলোর বিরুদ্ধে হামলা করা, ইসলাম ও মুসলমানদেরকে নতুন হুমকি হিসেবে তুলে ধরার লক্ষ্য ও পরিকল্পনা নিয়ে গত ১৫ ধরে এগিয়ে চলেছে ইহুদিবাদী, মার্কিন ও ইউরোপীয়রা। মুসলমান দেশগুলোর কৌশলগত সম্পদ ও মেধা -মনন এ হামলার লক্ষ্য হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

মুসলমান দেশগুলোতে আধিপত্য বিস্তার করা, এ সব দেশে পশ্চিমাদের ওপর নির্ভরশীল তাবেদার সরকার বসানো এবং তেল সম্পদের ওপর কর্তৃত্ব বজায় রাখা মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধের প্রধান উদ্দেশ্য বলে জানান তিনি। এ ছাড়া, অস্ত্র বিক্রির জন্যও পাশ্চাত্য মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ শুরু করতে চাইছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, সৌদি আরব অস্ত্রের সবচেয়ে বড় ক্রেতা বিশেষ করে আমেরিকা এবং ইহুদিবাদী ইসরাইলি অস্ত্রের বড় ক্রেতা।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে দুর্বল করে ফেলা আমেরিকা এবং ইসরাইলের সবচেয়ে বড় লক্ষ্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, মুসলিম দেশগুলোকে ভেঙ্গে টুকরা টুকরা করাকে অগ্রাধিকার দিয়েছে ওয়াশিংটন ও তেল আবিব।

You Might Also Like