জাবি শিক্ষককে পেটাল পুলিশ

সিগনাল অমান্যের অজুহাতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক শিক্ষককে তার মা-বাবার সামনে পেটাল পুলিশ সার্জেন্ট। পুলিশের মারধরের শিকার শিক্ষক রাকিব আহমদ জাবির গণমাধ্যম ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক।

শনিবার রাত ১০টার দিকে উত্তরার হাউস বিল্ডিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

রাকিব আহমেদ বলেন, শনিবার রাত ১০টার দিকে সিলেট যাওয়ার জন্য তিনি তার মা-বাবাকে নিয়ে ব্যক্তিগত গাড়িযোগে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে যাচ্ছিলেন। উত্তরা হাউস বিল্ডিং এলাকায় পৌঁছালে ইমরান নামে ট্রাফিক পুলিশের একজন সার্জেন্ট গাড়ি থামাতে সিগনাল দেন। তার সিগনালটি খেয়াল না করায় তিনি সামনে এসে গাড়িটি আটকিয়ে গাড়ির কাগজপত্র চান।

কাগজপত্র হাতে নেয়ার পর সার্জেন্ট ইমরান গাড়ি জব্দ করা হবে জানান। এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষক রাকিব তাকে অনুরোধ করে জানান, তিনি বাবাসহ সিলেট যাচ্ছেন। ট্রেন ১০টা ২০ মিনিটে। তিনি ওই কর্মকর্তাকে গাড়ির কাগজপত্র রেখে দিয়ে এবং চাইলে মামলা করতে পারেন জানিয়ে তাদের রেলস্টেশন পর্যন্ত যাওয়ার সুযোগ করে দিতে অনুরোধ করেন। এরপরও পুলিশের ওই সার্জেন্ট রাজি হচ্ছিলেন না।

শিক্ষক রাকিব আরো জানান, পরে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বলে পরিচয় দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন সার্জেন্ট ইমরান। একপর্যায়ে মা-বাবার সামনে আমার গলা চেপে ধরে লাঠি দিয়ে আঘাত করেন ও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন পুলিশের ওই সার্জেন্ট। এসময় ট্রাফিক পুলিশের আরো দুই সদস্য কাছে এসে আমাকে নিয়ে পুলিশ বক্সে আটকিয়ে রাখেন।

এ বিষয়ে মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, এডিসি ট্রাফিক (নর্থ) মারফত জানতে পারি একজন শিক্ষকের সঙ্গে এক ট্রাফিক সার্জেন্টের ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। পরবর্তীতে বিষয়টি মীমাংসা হয়েছে।

You Might Also Like