প্রেমের ফাঁদে ফেলে অপহরণ : যুবলীগ নেতাসহ গ্রেফতার ৫

বগুড়ায় সুন্দরী মহিলাকে দিয়ে গণপূর্ত বিভাগের এক কর্মকর্তাকে অপহরণ করে চাঁদা দাবীর ঘটনায় জড়িত সাবেক যুবলীগ নেতাসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে শহরের মালগ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় অপহৃত সরকারি কর্মকর্তাকেও উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, একটি অপহরণকারী চক্র মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বগুড়া গণপূর্ত বিভাগের কার্য সহকারী আব্দুল মান্নানকে কৌশলে শহরের মালগ্রামে ডেকে নেয়। এরপর তার মোবাইল নম্বর থেকে মেয়ের মোবাইল নম্বরে ফোন করে জানায় আব্দুল মান্নানকে অপহরণ করা হয়েছে। মুক্তির বিনিময়ে ৮ লাখ টাকা দাবি করে অপহরণকারীরা। এঘটনায় অপহৃত আব্দুল মান্নানের ভাই আবু সাঈদ খান সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর অপহৃত ব্যক্তিকে উদ্ধারে গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আমিরুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি টিম মাঠে নামে। এই গোয়েন্দা টিম মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে অপহরণকারী চক্রের গ্যাং লিডার মালগ্রাম দক্ষিনপাড়ার আব্দুল বাসেতের ছেলে ও সাবেক যুবলীগ নেতা সোহেল আহম্মেদ (৩৭) সহ চক্রের ৫ সদস্যকে শহরের মালগ্রাম দক্ষিণপাড়া থেকে গ্রেফতার করে। সোহেল যুবলীগ মালগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক। গ্রেফতারকৃত অন্যরা হলো- একই এলাকার লাল মিয়ার ছেলে রকি (২৬), খলিলুর রহমানের ছেলে আব্দুল মোমিন (২৭), মৃত ইউনুছের ছেলে জুয়েল (৩২) এবং জুয়েলের বোন সুইটি (৩৫)। গ্রেফতারকৃতরা সকলেই যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

এ বিষয়ে ১৪নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সোহেল একসময় যুবলীগের মালগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির নেতা ছিল। তবে, বর্তমানে সে দলের কোন পদে নেই।

পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক পিপিএম জানান, এই চক্রটি দীর্ঘ দিন যাবত সুন্দরী মহিলা দিয়ে প্রেমের ফাঁদ পেতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারি ও ব্যবসায়ীদের কৌশল ডেকে নেয়। এরপর তাদের জিম্মি করে মোটা অংকের টাকা দাবী করে। এর আগে এক পুলিশ কনস্টেবলও এই চক্রের ফাঁদে ধরা পড়েছিল।

You Might Also Like