টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

সিরিজের শেষ ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান। আজ বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে দুপুর আড়াইটায়।

এরইমধ্যে এক ম্যাচ হাতে রেখেই পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ। এবার পাকিস্তানকে প্রথমবারের মতো হোয়াইটওয়াশ বা বাংলাওয়াশ করার সুযোগ টাইগারদের সামনে। সে লক্ষ্যে আজ সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে পাকিস্তানের মুখোমুখি হচ্ছে মাশরাফি বাহিনী।

বাংলাদেশ ওয়ানডেতে এ পর্যন্ত নয়বার প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশের তিক্ততা দিয়েছে। এর মধ্যে টেস্ট খেলুড়ে দল রয়েছে জিম্বাবুয়ে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ড। এবার টেস্ট খেলুড়ে চতুর্থ দল হিসেবে পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করার হাতছানি। সেই সঙ্গে এই কীর্তির সংখ্যাটা ডাবল ফিগারে নিয়ে যাওয়ারও সুযোগ টাইগারদের সামনে।

পাকিস্তানকে আজ হারাতে পারলে দেশের মাটিতে টানা দুটি ওয়ানডে সিরিজের সব ম্যাচ জেতার কীর্তি গড়বে বাংলাদেশ। গত বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে সবকটি ম্যাচ জেতে মাশরাফির বিন মুর্তজার দল।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচের দুর্দান্ত জয়ে উজ্জীবিত বাংলাদেশও এখন শেষ ম্যাচ জেতার জন্য মুখিয়ে রয়েছে। দারুণ ফর্মে রয়েছেন তামিম ইকবাল। টানা দুই ম্যাচেই সেঞ্চুরির কীর্তি গড়েছেন বাঁহাতি এই ওপেনার। ‘রানমেশিন’ নামে পরিচিতি মুশফিকুর রহিমের ব্যাট তো ধারাবাহিকভাবেই আলো ছড়াচ্ছে। প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পর দ্বিতীয় ম্যাচে ফিফটি করেন দেশের এই টেস্ট অধিনায়ক। বাংলাদেশের টপ ও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের নৈপুণ্যে লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ক্রিজেই নামতে হচ্ছে না।

বোলিংয়েও দারুণ ছন্দে আছেন বাংলাদেশের বোলাররা। স্পিন ঘূর্ণিতে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের দিশেহারা করে দিচ্ছেন আরাফাত সানি, সাকিব আল হাসান। পার্টটাইম স্পিনার হিসেবে নাসির হোসেনও উইকেট নিচ্ছেন। পেস আক্রমণে অধিনায়ক মাশরাফি, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন এনে দিচ্ছেন কাঙ্ক্ষিত ব্রেক-থ্রু। আজ বাংলাদেশের চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে দেড়শ’ ওয়ানডে খেলতে নামছেন সাকিব। আগের ম্যাচে এই কীর্তি গড়েছেন মাশরাফি।

অপরদিকে ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং সব বিভাগেই নাজুক অবস্থা পাকিস্তানের। অভিজ্ঞ মোহাম্মদ হাফিজ ও ফাওয়াদ আলম দুই ম্যাচেই ব্যাট হাতে ব্যর্থ। নতুন অধিনায়ক আজহার আলী প্রথম ম্যাচে ফিফটি করলেও পরের ম্যাচে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। পেসার জুনাইদ খান তো দুই ম্যাচে নিয়েছেন মাত্র ১ উইকেট। বোলিং শুধরে দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা স্পিনার সাঈদ আজমলও ছিলেন নিষ্প্রভ। ফলে সফরকারীদের দুর্বলতা ও নিজেদের দুরন্ত পারফরম্যান্স ধরে রেখে সিরিজ ৩-০ করার সুবর্ণ সুযোগ বাংলাদেশের সামনে। পাকিস্তানকে বাংলাওয়াশ করতে পারবে তো সাকিব-তামিম-মাশরাফিরা? জবাব পেতে আর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা!

You Might Also Like