ভিসির অপসারণ দাবিতে শাবিপ্রবি’র ৩৫ শিক্ষকের পদত্যাগ

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ভিসি ড. আমিনুল হক ভূঁইয়ার অপসারণ দাবিতে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালসহ  ৩৫ জন শিক্ষক একযোগে পদত্যাগ করেছেন।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৭ প্রশাসনিক পদে কর্মরত ওই ৩৫ শিক্ষক সোমবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে প্রশাসনিক ভবনের রেজিস্ট্রার ভবনে এসে একযোগে পদত্যাগপত্র জমা দেন শিক্ষকরা। এ সময় রেজিস্ট্রার ও ভিসি কেউই প্রশাসনিক ভবনে উপস্থিত ছিলেন না। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আমিনুল হক ভূঁইয়া শিক্ষকদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হবে না জানিয়ে তাঁদের কাজে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান।

 

পদত্যাগ করা শিক্ষকদের মধ্যে রয়েছেন- মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষক ফোরামের আহ্বায়ক ও রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ শামসুল আলম, ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজির ডিরেক্টর লেখক ও অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল, সেন্টার ফর এক্সিলেন্সর ডিরেক্টর অধ্যাপক ইউনুস, কোয়ালিটি অ্যাসিওরেন্সের পরিচালক ও অধ্যাপক আউয়াল বিশ্বাস, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর, সহকারী প্রক্টর, ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক, পরিবহন প্রশাসক, বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট, সহকারী প্রভোস্টসহ ৩৫ জন।

 

পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার পর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষক পরিষদের আহ্বায়ক প্রফেসর ড. সৈয়দ সামসুল আলম ও যুগ্ম আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মুস্তাকুর রহমান প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, আমরা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি।

এ নিয়ে পরবর্তীতে বৈঠকের মাধ্যমে কর্মসূচী গ্রহণ করবেন শিক্ষকরা। তবে ক্লাস-পরীক্ষা অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়।

ড. জাফর ইকবাল বলেন, এ ভিসির ব্যবহারে অন্যান্য শিক্ষকরা কষ্ট পেয়েছেন। একইভাবে আমিও কষ্ট পেয়েছি। তাই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

 

গত সোমবার সকালে ভিসির সঙ্গে একাডেমিক ভবনের স্পেস সম্পর্কিত জটিলতা নিরসনের ব্যাপারে কথা বলতে যান পদার্থবিজ্ঞান ও জিওগ্রাফি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট (জিইই) বিভাগের ১৯ জন শিক্ষক। তাদের মধ্যে প্রফেসর ড. জাফর ইকবালের স্ত্রী পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. ইয়াসমিন হকও উপস্থিত ছিলেন। ওই দিন ভিসির সঙ্গে কথাকাটাকাটি হলে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. সৈয়দ বদিউজ্জামান ফারুক এবং জিইই বিভাগের প্রফেসর ড. শরীফ মোহাম্মদ শারাফউদ্দিন বিভাগীয় প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন। এ ব্যাপারে শিক্ষকরা গতকাল বিকেল ৫টার মধ্যে ভিসিকে পদত্যাগের আলটিমেটাম দিয়েছিলেন। ওই সময়ের মধ্যে ভিসি পদত্যাগ না করায় প্রশাসনিক পদ থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা।

You Might Also Like