পাকিস্তানে সামরিক আদালতের মৃত্যুদণ্ড স্থগিত

পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট দেশটির নতুন সামরিক আদালতের দেয়া মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা স্থগিত করেছে।

গত বছর ডিসেম্বরে পাকিস্তানের একটি স্কুলে তালেবান জঙ্গিদের হামলায় দেড়শ’ শিশুর মৃত্যুর পর সম্প্রতি এই আদালত গঠিত হয়।

সামরিক আদালত গঠনের সাংবিধানিক বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আইনজীবীদের দায়ের করা একটি মামলার শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতি নাসির-উল-মুলক বৃহস্পতিবার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর স্থগিত করেন।

সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত মামলার বিচারের জন্য গত জানুয়ারিতে সংবিধান সংশোধন করে সামরিক আদালত গঠন করা হয়। তবে আইনজীবী এবং মানবাধিকারকর্মীরা এতে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

এপ্রিলের শুরুর দিকে সামরিক আদালত রায় দেয়া শুরু করে।

ইতোমধ্যে ছয় অভিযুক্ত জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড এবং একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে সামরিক আদালত।

তবে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।

পাকিস্তানের খ্যাতনামা মানবাধিকারকর্মী ও আইনজীবী আসমা জাহাঙ্গীর সামরিক আদালতের গোপনীয়নতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আদালতে।

‘আমরা এসব ক্যাঙ্গারু আদালতের বিপক্ষে। আমরা অন্যান্য বিচারকেও চ্যালেঞ্জ করবে যদি দেখা যায় যে তাদের বিচারে মৌলিক মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে,’ বলছিলেন আসমা।

সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, যারা সামরিক আদালতে দণ্ডিত হবেন তাদের আপিল করার অধিকার রয়েছে। এ সংক্রান্ত রুলের জবাব দেয়ার জন্য অ্যাটর্নি জেনারেলকে ২২ এপ্রিল পর্যন্ত সময় দেয়া হয়েছে।

You Might Also Like