সম্ভাব্য ৭ প্রার্থীকে ইসির কারণ দর্শানোর নোটিশ

নির্দেশ অমান্য করে আগাম প্রচারণার অভিযোগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাত সম্ভাব্য প্রার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিস দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই সাতজনকে তিন দিনের মধ্যে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে ইসি মৌখিকভাবে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হাজী মো. সেলিমকেও সতর্ক করেছেন। নোটিশপ্রাপ্তদের মধ্যে চারজন সাধারণ কাউন্সিলর ও তিনজন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন। নির্বাচন কমিশন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, রবিবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মিহির সরওয়ার মোর্শেদ স্বাক্ষরিত কারণ দর্শানোর নোটিস সম্ভাব্য প্রার্থীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

নোটিশ পাঠানোর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন মিহির সরওয়ার। তিনি বলেন, আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে ইসি ব্যবস্থা নেবে। তাই যেসব সম্ভাব্য প্রার্থী নির্দেশ অমান্য করে আগাম প্রচারণা চালিয়েছেন তাদের নোটিস দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, নোটিস পেয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিল পদের সম্ভাব্য প্রার্থী খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থী আনসার হোসেন বাবুল, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, একই ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থী হাসিবুল রহমান মানিক, সংরক্ষিত-৪ আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী ফারহানা ডলি, সম্ভাব্য প্রার্থী মল্লিকা জামান (মুক্তা), সম্ভাব্য প্রার্থী শেফালি।

ইসির ঘোষিত তফসিল অনুসারে, ২৮ এপ্রিল ঢাকার দুটি এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ২৯ মার্চ। মনোনয়নপত্র যাছাই-বাছাই-১ ও ২ এপ্রিল এবং প্রত্যাহারের শেষ সময় ৯ এপ্রিল।

প্রসঙ্গত, আচরণবিধিতে বলা আছে, কোনও প্রার্থী বা তার পক্ষ থেকে অন্য কোনও ব্যক্তি ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত তারিখের ২১ দিন পূর্বে কোনও প্রকার প্রচারণা করতে পারবে না। ভোটগ্রহণের দিন থেকে পূর্ববর্তী ২১ দিন প্রার্থীরা প্রচারণা চালাতে পারবেন। তবে সেখানে প্রার্থীর ছবি ও দলীয় প্রতীক এবং দলের নাম ব্যবহার করতে পারবেন না। আচরণবিধি অনুসারে, প্রার্থীদের ভোটগ্রহণের ৩২ ঘণ্টা আগে প্রচারণা বন্ধ করতে হবে।

 

You Might Also Like