ঋণ জালিয়াতি: ওরিয়েন্টাল ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে চার্জশিট

ভূয়া চলতি ও ঋণ হিসাব খুলে জালিয়াতির মাধ্যমে সাড়ে সাত কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে প্রাক্তন দি ওরিয়েণ্টাল ব্যাংকের (বর্তমানে আইসিবি ইসলামি ব্যাংক) চার পদস্থ কর্মকর্তাসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশনের নিয়মিত বৈঠকে এই চার্জশিট (অভিযোগপত্র) অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হবে। দুদকের উপপরিচালক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্ রাইজিংবিডিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

যাদের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে তারা হলেন প্রাক্তন ওরিয়েন্টাল ব্যাংক কারওয়ান বাজার শাখার প্রাক্তন এভিডি ও ম্যানেজার মো. তারিকুল ইসলাম খান, একই শাখার প্রাক্তন ম্যানেজার ও এসএভিপি মুশতাক আহমদ, প্রধান কার্যালয়ের প্রাক্তন সিনিয়র অ্যাসিটেন্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট (এসএভিপি) মো. মঞ্জুরুল আলিম, প্রধান কার্যালয়ের এফসিডি শাখার প্রাক্তন এসিসটেন্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার সাইফুল আজিজ পাভেল ও কুমিল্লা জেলার কোতয়ালী থানার দারোগা ও বাড়ি গ্রামের বাসিন্দা এ. এস. মাহবুবুল আনাম।

অভিযোগের বিষয়ে দুদক সূত্র জানা যায়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে   জালিয়াতির মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার করে নাম সর্বস্ব প্রতিষ্ঠান মেসার্স অরবিট ইন্টারন্যাশনালের নামে ভুয়া চলতি ও ঋণ হিসাব খুলে মোট সাত কোটি ৫০ লাখ ৮৪ হাজার ৬৩৪ টাকা আত্মসাত করেন। এরমধ্যে ইন্টার ব্রাঞ্চ ক্রেডিট অ্যাডভাইসের (আইবিসিএ) বিপরীতে পাঁচ কোটি ৪৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ও ভুয়া ঋণ হিসাবের বিপরীতে দুই কোটি পাঁচ লাখ নয় হাজার ৬৩৪ টাকা উত্তোলণ করেছেন।

দুদকের তদন্তে অর্থ আত্মসাতের ওই অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় দণ্ডবিধির ৪২০/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/৪৭৭(এ)/৪০৯/১০৯ ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলাটির চার্জশিট অনুমোদন দেওয়া হয়।

২০১৪ সালের ২৩ মার্চ রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলাটি (মামলা নং ৩৭) দায়ের করা হয়েছিল। প্রায় এক বছর পর তদন্ত শেষে দুদকের উপপরিচালক মির্জা জাহিদুল আলম মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পর কমিশন চার্জশিট অনুমোদন দেয়।

You Might Also Like