গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’ উন্মোচন

স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন এবং জাতীয় শিশু দিবসে তাঁর আত্মজীবনী অবলম্বনে ‘মুজিব’ নামে গ্রাফিক নভেলের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।
সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) ও বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের আয়োজনে আজ মঙ্গলবার বিকেলে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে ‘মুজিব’ গ্রাফিক নভেলটির মোড়ক উন্মোচনের অনুষ্ঠান হয়। বঙ্গবন্ধুর মেয়ে শেখ রেহানার ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক (ববি) ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এই গ্রাফিক নভেলটির প্রকাশক।
অনুষ্ঠানে নানা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কথা বলেন রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। তিনি বলেন, ‘আমার জন্ম ১৯৮০ সালের দিকে। আমার নানা, মামা-মামি কাউকে দেখিনি। তবে ছোটবেলা থেকেই মার (শেখ রেহানা) কাছ থেকে তাঁদের গল্প শুনেছি। আমি মাকে জিজ্ঞাসা করতাম, “তোমরা দুষ্টুমি করলে নানা তোমাদের বকত কি না।” নানার বিষয়ে জানতে মাকে শুধু প্রশ্ন করতাম। বলতাম আরেকটি বলো।’
বক্তৃতায় তাঁর ছেলেবেলার স্মৃতিচারণা করে রাদওয়ান বলেন, ‘মার কাছ থেকে শোনা গল্প স্কুলে গিয়ে বন্ধুদের বলতাম। কিন্তু তারা বঙ্গবন্ধুকে চিনত না। অনেক টিচার বলত, “বঙ্গবন্ধুর নাম এত বেশি বেশি বোলো না। অনেকে তাঁর নাম শুনলে ঘাবড়ে যায়।” একদিন এক টিচার বলল, “বঙ্গবন্ধু বঙ্গবন্ধু ছিলেন না, ছিলেন বঙ্গশত্রু”।’
রাদওয়ান বলেন, ‘স্কুলের বন্ধুদের, টিচারদের কথা মাকে এসে বলতাম। তখন মা বলত, “তোমার নানার অনেক ধৈর্য ছিল। একদিন সবাই তোমার নানার কথা জানতে পারবে”।’ বিশ্বের বড় নেতাদের কমিক ও গ্রাফিক নভেল পড়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে গ্রাফিক নভেল করার চিন্তা মাথায় আসে বলেও জানান রাদওয়ান।
মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ‘মুজিব’ নামের গ্রাফিক নভেলটি বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বই অবলম্বনে রচিত হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে ১২টি খণ্ডে প্রকাশিত হবে এই গ্রাফিক নভেলটি। এই নভেলের ওপর ভিত্তি করে পরবর্তী সময় একটি অ্যানিমেটেড সিনেমাও তৈরি করা হতে পারে। নভেলটিতে স্থান পেয়েছে বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী লেখার প্রেক্ষাপট, জন্ম ও শৈশব, স্কুল ও কলেজের শিক্ষাজীবনের পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার বর্ণনা।
গ্রাফিক নভেলটির প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাশুরা হোসেন, কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব, বইটির শিল্পী এ বি এম সালাহউদ্দীন (ষুভ) ও সৈয়দ রাশাদ ইমাম (তন্ময়) বক্তব্য দেন। উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, সাংসদ মাহজাবিন খালেদ প্রমুখ। পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাংসদ তারানা হালিম।

You Might Also Like