ইচ্ছে হলেই মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয়া যায় : সুব্রহ্মনম স্বামী

বিজেপি নেতা সুব্রহ্মনম স্বামী বলেছেন, মসজিদ কোনো ধর্মস্থানই নয়! তাই ইচ্ছা হলেই নাকি তাকে গুঁড়িয়ে দেওয়াই যায়!

শনিবার ভারতের গৌহাটিতে এমন অদ্ভুত দাবি করলেন তিনি। তার এই মন্তব্যের পরপরই বিতর্কের ঝড় উঠেছে। এমনকি আসামে তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

একই ভাবে সুব্রহ্মনম স্বামী শুক্রবার রাতে গুয়াহাটিতে একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে বলেন ”মসজিদ মোটেও কোনো ধর্মস্থান নয়। এটা সাধারণ একটা বিল্ডিং মাত্র। যেকোনো সময় চাইলেই মসজিদ ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া যায়। আমার সঙ্গে কেউ সহমত না হলে আমি বিতর্কে যেতে রাজি। সৌদি আরবের মানুষদের কাছ থেকে এই তথ্য আমি পেয়েছি।”

এর সঙ্গেই ভারতীয় মুসলিমকেই হিন্দু দাবি করেছেন স্বামী। শনিবার, গৌহাটিতে ভিন্ন একটি অনুষ্ঠানে এই কথার পুনরাবৃত্তি করেন তিনি।

শনিবার স্বামীর এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে পুরো আসাম জুড়েই একাধিক সংগঠন বিক্ষোভ দেখিয়েছে। প্রকাশ্য রাস্তায় সুব্রহ্মনম স্বামীর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ এনে ভারতীয় দ-বিধির ১২০ (বি) ও ১৫৩ (এ) ধারায় সুব্রহ্মনম স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতি।

স্বামীর এই মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে কেএমএসএস-এর প্রেসিডেন্ট অখিল গগৌর অভিযোগ ”বিধানসভা নির্বাচনের মুখে বিজেপি এ রাজ্যের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে চাইছে। মুসলিমদের বিরুদ্ধে স্বামীর এই বিতর্ক সেই ষড়যন্ত্রের অংশমাত্র। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং আসাম সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি এ রাজ্যে সুব্রহ্মনম স্বামীর প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হক।”

আসামের মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৌও স্বামী ও তার দলের বিরুদ্ধে সুর চড়িছেন। তিনি বলেছেন ”আসামের অনুভূতির উপর এই ধরনের আঘাত হানার ভারী মূল্য দিতে হবে বিজেপিকে।”

অন্যদিকে, দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ”এই মন্তব্য স্বামীর ব্যক্তিগত, এর সঙ্গে আমাদের দলের কোনো সম্পর্ক নেই। তবে এই বিষয়ে আমরা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে চিঠি লিখব।”

You Might Also Like