জঙ্গি নেত্রীর স্থান বাংলাদেশে হবে না : প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘ওই জঙ্গি নেত্রীর স্থান বাংলাদেশে হবে না।’

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আন্দোলনের নামে সাধারণ মানুষকে হত্যা করছেন। তিনি মানুষের রক্ত নিয়ে ছিনিমিনি খেলছেন। কোনোভাবেই এসব বরদাশত করা হবে না। নিজের কর্মকাণ্ডের শাস্তি তাকে পেতেই হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ এখন অনেক সজাগ। প্রতিটি এলাকায় মানুষের ওপর হামলা হচ্ছে। পরাজিত ইয়াহিয়ার চামচারা এই হামলা করছে। এরা কারা আপনারা জানেন।’

শনিবার বিকেলে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের জনসভায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বেলা সোয়া ৩টায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ জনসভা শুরু হয়।

জনসভার সভাপতি ও আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাবেশস্থলে এলে ঐতিহাসিক এ জনসভাটি শুরু হয়।

বিএনপি নেত্রী দেশের মানুষের শান্তি দেখতে পারেন না অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘এক বছর বাংলাদেশের মানুষ এখন শান্তিতে ছিল। বিএনপি নেত্রী আবার শুরু করেছেন। তিনি হরতাল ডাকেন, অবরোধ ডাকেন। তার কথা এখন কেউ শুনে না। জঙ্গিনেত্রীর নির্দেশ বাংলাদেশের মানুষ না মানায় আমি বাংলাদেশের মানুষকে ধন্যবাদ জানাই।’

তিনি আরো বলেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তির দোসররা আবার বাংলাদেশের মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে পেট্রলবোমা মেরে সাধারণ মানুষ, শ্রমজীবী ও খেটে খাওয়া মানুষকে হত্যা করছে।’

আন্দোলনের নামে বিএনপি জোটের নাশকতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, বিদেশি শক্তির মদদ পাবেন বলে বিএনপি চেয়ারপারসন আশা করলেও তারে সে আশা পূরণ হয়নি।

সমাবেশ মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন; আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজুলল করিম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ, সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম প্রমুখ।

You Might Also Like