সিউলে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের ওপর হামলা

সিউলের মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্ক লিপার্টের বিরুদ্ধে আজ(বৃহস্পতিবার) ব্লেড দিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। হামলায় লিপার্টের ডান গাল ও বাম কব্জি কেটে গেছে এবং ৪২ বছর বয়সি রক্তাক্ত রাষ্ট্রদূতকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সিউলের কেন্দ্রস্থলে একটি প্রাতরাশ বৈঠকে যোগ দেয়ার সময় এ হামলা চালানো হয়। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে সাতটায় এ হামলা হয়েছে। এ সময়ে ‘উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া একত্রীত হওয়া উচিত’, ‘ যুদ্ধের প্রশিক্ষণ চাই না’ বলে এক ব্যক্তি শ্লোগান দিয়েছে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছ।

 

হামলাকারীর ডান হাতে ব্লেড লুকানো ছিল বলে জানানো হয়েছে। হামলার পরই কিম কি- জং নামের ৫৫ বছর বয়সি এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। ২০১০ সালে সিউলের জাপানি রাষ্ট্রদূতের উপর হামলার নিরাপত্তা বাহিনীর এক সদস্য তার ঘাড়ে পা দিয়ে মাটিতে চেপে ধরে রেখেছে এবং অন্য আরেক সদস্য তার দেহ তল্লাসি করছে এমন ছবি ছাপা হয়েছে। সন্দেহভাজন এ হামলাকারী পরনে ছিলে গোলাপি রংয়ের জ্যাকেট। পুলিশ বলেছে, হামলাকারী  একটি কোরিয়া একত্রীকরণ গোষ্ঠীর সদস্য এবং এ গোষ্ঠীই আজকের প্রাতরাশ বৈঠকের আয়োজন করেছিল।

 

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর বলেছে লিপার্টের আঘাত মারাত্মক নয় এবং হাসপাতালে স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছেন তিনি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাকে ফোন করেছিলেন এবং তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন। এ দিকে, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন-হাই এক বিবৃতিতে এ হামলার কঠোর নিন্দা করেছেন। এ হামলাকে অগ্রহণযোগ্য বলে উল্লেখ করে একে দক্ষিণ কোরিয়া-মার্কিন জোটের উপর আক্রমণ বলে অভিহিত করেছেন তিনি।

You Might Also Like