সহিংসতা : সংসদে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি

চলমান সহিংসতা বন্ধে সরকার কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এ বিষয়ে তিনশ বিধিতে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করেছেন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজী।

সোমবার দশম সংসদের পঞ্চম অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাড়িয়ে এ বিবৃতি দাবি করে রুস্তম আলী বলেন, রোম যখন পুড়ছিল, তখন সম্রাট বাঁশি বাজাচ্ছিল’। খালেদা জিয়ার নির্দেশে দেশে দুইমাস ধরে সহিংসতা চলছে।

কিন্তু কবে, কিভাবে এ সহিংসতা ও আগুনে মানুষ পুড়িয়ে মারা বন্ধ হবে আজ পর্যন্ত স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সংসদে কোনো বিবৃতি দিতে পারেননি। অন্যান্য মন্ত্রীরা বিবৃতি দেন, যারা এ বিষয়ে কিছু হয়তো জানেনই না। তবে তারা কিভাবে বিবৃতি দেন। এই পার্লামেন্টে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে বিবৃতি দিয়ে বলতে হবে, তিনি কী কী পদক্ষেপ নিয়েছেন।

তিনি বলেন, জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ আন্তর্জাতিক ফোরাম বিবৃতি দিয়ে আমাদের এ চলমান সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন। কিন্তু তাদের বিবৃতিতে কিভাবে এটা বন্ধ করা যায় তার দিক নির্দেশনা নেই।

এসময় তিনি দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ব্যর্থ মন্তব্য করে বলেন, আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাদের কেন বোঝাতে ব্যর্থ হচ্ছে- কেন এবং কারা এদেশে সহিংসতা চালাচ্ছে? পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় তা হলে আন্তর্জাতিক ফোরামকে সঠিক তথ্য তুলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছে।

রুস্তম আলী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মন্ত্রীরা তো গাড়ি নিয়ে চলেন। তাদের প্রটোকল আছে। সামনে পেছনে পুলিশ থাকে। কিন্তু সাধারণ মানুষের কোন প্রটোকল নেই, তারা কীভাবে চলে সেটা ভাবতে হবে।

জনগণ এখন ভীত সন্ত্রস্ত, তারা আর পুড়ে মরতে চায় না। আর একজনও মানুষ পেট্রোল বোমায় দগ্ধ হতে চান না। এটা বন্ধের পথ অবশ্যই আছে। সরকার চাইলে আমরা সাজেশন দিতে পারি। এটা দীর্ঘদিন ধরে জাতি সহ্য করতে পারে না। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে দায়িত্ব নিয়ে বিবৃতি দিয়ে দেশবাসীকে আশ্বস্ত করার অনুরোধ জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, এ সহিংসতা মাঝখানে কমেছিলো। এখন আবারও বেড়ে গেছে। মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। আর কতকাল ? দেশের জনগণ দীর্ঘদিন এ যন্ত্রনা সহ্য করবে না। তারা চায় আর যেন একটা মানুষও পেট্রোল বোমায় দগ্ধ হয়ে মারা না যায়।

You Might Also Like