অভিজিৎ হত্যায় মান্না-খোকার ফোনালাপের যোগসূত্র রয়েছে

ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যার সঙ্গে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার ফোনালাপের যোগসূত্র রয়েছে বলে মন্তব্য করেছে ১৪ দল।

শুক্রবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির কার্যালয়ে বৈঠক শেষে ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন আগে মান্না ও খোকার ফোনালাপে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লাশ ফেলার কথা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কাল একজনকে হত্যা করা হয়েছে। আর এর হত্যার পেছনে এদের যোগসূত্র রয়েছে বলে ১৪ দল মনে করে।’

ব্লগার অভিজিত হত্যার নিন্দা জানিয়ে নাসিম বলেন, ‘এ হত্যার পেছনে ধর্মান্ধ রাজনৈতিক দল ও একাত্তরের ঘাতকরা যে জড়িত, এতে কোনো সন্দেহ নেই। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। এদের বাইরে রাখা যাবে না।’

তিনি বলেন, ‘আজ সমগ্র দেশ উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠায় রয়েছে। জাতি আজ মর্মাহত। প্রতিদিনই খালেদা জিয়ার মুখোশ উন্মোচিত হচ্ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি না হত্যার মাধ্যমে অগণতান্ত্রিক ও অসংবিধানিকভাবে ক্ষমতা পরিবর্তন হবে। খালেদা জিয়া এখন জঙ্গি, সন্ত্রাস ও পেট্রোলবোমার নেত্রী। সেনাবাহিনীকে উসকে দেয়ার চেষ্টা চলছে। তা গোয়েন্দা সংস্থা ও সাংবাদিকদের লেখার মাধ্যমে উন্মোচিত হচ্ছে। কিন্তু অবৈধভাবে কাউকেই ক্ষমতা দখল করতে দেয়া হবে না।’

খালেদা জিয়াকে হতাশার নেত্রী দাবি করে নাসিম বলেন, ‘তিনি প্রতিটি পদক্ষেপেই ভুল সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। হরতাল-অবরোধ আজকে দেশে তামাশায় পরিণত হয়েছে। হরতাল-অবরোধ দিয়ে দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে তিনি ধ্বংস করে দিচ্ছেন। নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করতে তিনি ভুলে গেছেন। তিনি আইন-আদালত, বিচার ব্যবস্থায় বিশ্বাস করেন না। ছেলে-মেয়েদের পরীক্ষার সময় হরতাল-অবরোধ দিয়ে তিনি শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন। তার পরিণতির জন্য আমাদের কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।’

You Might Also Like