পিঁপড়ারাও টয়লেটে যায়!

শৌচকর্মে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিয়ে শুধু মানুষই যে সচেতন তা নয়। বরং পিঁপড়ার মতো পতঙ্গরাও এ ব্যাপারে তাদের সচেতনতার পরিচয় দিয়েছে। এন্টেমোলজিস্ট বা পতঙ্গ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পিঁপড়ার মতো পতঙ্গরা মোটেও যেখানে সেখানে মল, মূত্র ত্যাগ করে না। বরং মানুষের মতোই নিজেদের বসতির মধ্যে নির্দিষ্ট একটি স্থানকে তারা বেছে নেয় মল-মূত্র ত্যাগের জন্য।

জার্মান গবেষক টোমার জ্যাকজকেস ও তার সঙ্গিরা পিঁপড়েদের বহু বসতি দীর্ঘদিন ধরে পর্যবেক্ষণ করে দেখেছেন পিঁপড়ারা বাসার মধ্যেই তৈরি করে নির্দিষ্ট ‘টয়লেট’ বা ‘শৌচালয়’। ওই নির্দিষ্ট স্থানেই মল-মূত্র ত্যাগ করে তারা।

ব্ল্যাক গার্ডেন পিঁপড়েদের ২১টি বসতিকে তারা প্লাস্টার বাসায় দু’মাস ধরে যত্ন সহকারে পালন করেছেন। এই পিঁপড়েদের নিয়ম করে মিষ্টি জাতীয় খাবার খাইয়েছেন। দেখেছেন প্রত্যেকটি কলোনিতেই একটি নির্দিষ্ট স্থানেই বর্জ্য ত্যাগ করছে তারা।

পতঙ্গ বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন পিঁপড়া বা পিঁপড়ার মত সমাজবদ্ধ পতঙ্গরা সাধারণত পরিচ্ছন্নতা নিয়ে সচেতন হয়। এই পতঙ্গরা নিজেদের বসতি সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে চায়। তারা বাসার বাইরে একটি নির্দিষ্ট স্থানে বর্জ্য ত্যাগ করে অথবা বাসার মধ্যেই নির্দিষ্ট একটি স্থানে বর্জ্য পদার্থ ত্যাগ করে।

সম্ভবত রোগ ছড়ানো ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ রোধ করতেই নির্দিষ্ট স্থানকে বর্জ্য ত্যাগের জন্য বেছে নেয় তারা। তবে, বাসার মধ্যেই শৌচাগারের অবস্থান বোঝায় প্যাথোজেনের প্রকোপ সেখানে খুব একটা বেশি নয়। -জিনিউজ

You Might Also Like