১৯৭৯ সালের আগের রাষ্ট্রপতিদের অবসর ভাতার আওতায় আনা হচ্ছে

মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি পদের দায়িত্ব পালনকারী ব্যক্তিদের অবসরভাতা সুবিধার আওতায় আনতে আইন সংশোধনের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন সংসদকার্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। এতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ আরো কয়েকজন রাষ্ট্রপতি অবসরভাতার আওতায় আসবেন।
বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়।
মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্ব টেবিলে উত্থাপিত হয়। সরকার দলীয় সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বর্তমানে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতিরা ‘দ্যা প্রেসিডেন্ট’স পেনশন অর্ডিনেন্স, ১৯৭৯’ অনুযায়ী অবসর ভাতা পেয়ে থাকেন। ১৯৮৮ সালে অধ্যাদেশের মাধ্যমে এটি সংশোধন করা হয়। মূল আইনে এটি কবে থেকে কার্যকর হবে তা বলা হয়নি। তবে, সংশোধিত আইনে বলা হয়েছে- ১৯৮৮ সালের ৪ এপ্রিল থেকে কার্যকর হবে।
মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী রাষ্ট্রপতিদের অবসর সুবিধা প্রসঙ্গে মতিয়া চৌধুরী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকে অধ্যাদেশ জারির সময় পর্যন্ত যারা রাষ্ট্রপতি পদের দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের অবসরভাতার বিষয়ে আইনে কোনো সুস্পষ্ট বিধান নেই। যার কারণে মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি পদে দায়িত্ব পালনকারীদের অবসরভাতার বিষয়টি নিশ্চিত করতে আইন সংশোধনের প্রক্রিয়া চলছে। একই সঙ্গে আদালতের রায়ে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে রাষ্ট্রপতি পদে দায়িত্ব পালনকারীদের বিষয়েও আইনের বিধান স্পষ্ট করার কথাও জানান তিনি।
এর আগে গত ১৫ ডিসেম্বর মন্ত্রিসভার বৈঠকে রাষ্ট্রপতির সুবিধাভাতার আইনটি সংশোধনীর জন্য উপস্থাপন হলে ওই সময় মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী রাষ্ট্রপতিদের সুবিধাভাতা প্রাপ্যতার প্রসঙ্গটি উঠে আসে। ওই বৈঠকে একাধিক মন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী রাষ্ট্রপতিদের বিশেষ করে দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধুকে অবসর ভাতার সুবিধায় আনার কথা বলেন।
পরে মন্ত্রিসভায় বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনা করে নতুনভাবে আইনটি উপস্থাপনের জন্য আইন মন্ত্রণালয়কে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

You Might Also Like