জাতীয় পার্টিকে দালাল বলায় সংসদে হট্টগোল

বিএনএফ ও জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যদের তুমুল হট্টগোলে সোমবার হঠাৎ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে সংসদ অধিবেশন। গুলশানে রাজনৈতিক দলগুলোর কার্যালয় সরানোর ইস্যুতে সেখানে প্রবল বাগ্‌বিতণ্ডা হয়।

মাগরিবের নামাজের বিরতির পর পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে বিএনএফ সভাপতি ও ঢাকা-১৭ আসনের সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘গুলশান থেকে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়সহ জাতীয় পার্টির অফিস সরিয়ে নিতে হবে।’ নিজের নির্বাচনী এলাকার মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থেই তিনি রাজনৈতিক দলগুলোর কার্যালয় সরানোর দাবি করেন।

জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা এ দাবির তীব্র বিরোধিতা করেন। কারণ, এরশাদের বাসভবন ও কার্যালয়ও রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত।

এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে আবুল কালাম আজাদও জাতীয় পার্টিকে আক্রমণ করেন। তিনি জাতীয় পার্টিকে দালাল বলে ভর্ৎসনা করলে উত্তেজনা আরো ছড়িয়ে পড়ে।

জাতীয় পার্টির আসনগুলোর ঠিক পেছনের আসনে দাঁড়িয়ে বক্তব্য রাখছিলেন আবুল কালাম আজাদ। তিনি উত্তেজিত হয়ে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করায় জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ রোমান মিয়া তেড়ে যান আবুল কালাম আজাদের দিকে।

উত্তেজনা থামাতে ডেপুটি স্পিকার আবুল কালাম আজাদের মাইক বন্ধ করে দেন এবং সবাইকে শান্ত হতে বলেন।
এ ঘটনার কিছুক্ষণ আগেই বক্তব্য রেখে সংসদ থেকে বেরিয়ে যান বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এ সময় সংসদে ছিলেন না।

আবুল কালাম আজাদের কটূক্তিমূলক বক্তব্য এক্সপাঞ্জ করার দাবি জানান জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সংসদ সদস্য জিয়া উদ্দিন বাবলু। তিনি আবুল কালাম আজাদকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেন।

বিএনএফ সভাপতির অভব্য শব্দগুলো এক্সপাঞ্জ করা হবে বলে জানান ডেপুটি স্পিকার। তবে তিনি বলেন, ‘ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি আবুল কালাম আজাদের ব্যক্তিগত বিষয়।’

You Might Also Like