পাকিস্তানকে হারিয়ে চাপমুক্ত ভারত

স্নায়ুচাপের কাছে কি হারল পাকিস্তান! আর ভারত কি সেটাই জয় করল? প্রশ্নের উত্তরটা পাওয়া খুব কঠিন।

ক্রিকেটের এই দুই পরাশক্তির লড়াইয়ের কোনো ব্যাখ্যা নেই। টানটান উত্তেজনায় ঠাসা ম্যাচের প্রতিটি মুুহূর্তের সঙ্গে জড়িয়ে থাকে পুরো দেশের সম্মান।

যেখানে এক মুহূর্তের জন্যে পা পিছলে গেলে ফিরে আসা খুবই কঠিন। আর সেই অসাধ্য সাধন করতে গিয়েই বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথম ম্যাচেই ভারতের বিপক্ষে ৭৬ রানে হেরে বসল পাকিস্তান।

পাকিস্তান তখনই পিছিয়ে যায়, যখন উইকেটের পেছনে উমর আকমল বিরাট কোহলির ক্যাচ ছেড়ে দেন। ৭৬ রানে জীবন পাওয়া কোহলি তার ইনিংসটি থামান ১০৭ রানে। ১২৬ বলে ৮ বাউন্ডারিতে এবারের বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে পাকিস্তানকে একাই ব্যাকফুটে ঠেলে দেন কোহলি।

কোহলির খাতায় যোগ হওয়া অতিরিক্ত ৩১ রানেই কি কপাল পুড়ল পাকিস্তানের।

অ্যাডিলেড ওভালে ‘বি’ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ৭ উইকেটে ৩০০ রান করে ভারত। জবাবে ৩ ওভার হাতে থাকতেই ২২৪ রানে শেষ হয় পাকিস্তানের ইনিংস।

দলীয় ৩৪ রানে রোহিত শর্মাকে হারানোর পর দ্বিতীয় উইকেটে ১২৯ রান যোগ করেন কোহলি ও ধাওয়ান। অস্ট্রেলিয়ায় শিখর ধাওয়ান ফর্মে না থাকলেও পাকিস্তানের বিপক্ষে হঠাৎ জ্বলে ওঠেন। তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। তিন অঙ্কের ম্যাজিকাল ফিগারের দিকে এগোতে থাকলেও ৭৩ রানে রান আউটের শিকার হতে হয় বাঁহাতি এই ওপেনারকে। তবে থেমে যাওয়ার আগে ৭৬ বলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় ইনিংস সাজান তিনি। গড়ে দেন একটা শক্ত ভিত।

এরপর পাকিস্তানি বোলারদের ওপর চেপে বসেন বাঁহাতি রায়না। তাকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন কোহলি। ৫৬ বলে ৭৪ রানের চমৎকার এক ইনিংস উপহার দেন রায়না। কোহলিকে সঙ্গে নিয়ে ১১০ রানের জুটি গড়েন রায়না।

ইনিংসের শুরু থেকে ৪৫ ওভার পর্যন্ত ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের দাপট থাকলেও শেষ ৫ ওভারে ঘুরে দাঁড়ায় পাকিস্তান। কোহলি (১০৭), রায়না (৭৪), ধোনি (১৮) ও রাহানের (০) উইকেট তুলে নেন ডানহাতি পেসার সোহেল খান। এর আগে রোহিত শর্মার উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচে মোট ৫ উইকেট শিকার করেন তিনি। এজন্য খরচ করেন ৫৫ রান।

ওভারপ্রতি ছয় রানের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে ১১ রানে প্রথম উইকেট হারায় সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান। দ্বিতীয় উইকেটে হারিস সোহেল ও আহমেদ শেহজাদ ৬৮ রানের জুটি গড়েন।

এই জুটি ভাঙেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ৪৮ বলে ৩৬ রান করা হারিস সোহেল স্লিপে ক্যাচ তুলে দেন। এরপর শেহজাদকে সঙ্গে নিয়ে দলকে ১০২ রান পর্যন্ত টেনে নেন অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক।

সেখানেই শেষ পাকিস্তান। মাত্র ১ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে তারা। শেহজাদ (৪৭) ও শোয়েব মাকসুদকে (০) ফেরান উমেশ যাদব। আর উমর আকমলের উইকেট নেন অশ্বিন।

এরপর আফ্রিদির (২২), মিসবাহ-উল-হকের (৭৬) রানের ইনিংসে পরাজয়ের ব্যবধান কমায় পাকিস্তান। মিসবাহ ৮৪ বলে ৯টি চার ও এক বাউন্ডারিতে ৭৬ রান করেন।

বল হাতে ভারতীয়দের সেরা বোলার মোহাম্মদ সামি। ৩৫ রানে ৪ উইকেট নেন তিনি। ২টি করে উইকেট নেন উমেশ যাদব ও মোহিত শর্মা।

You Might Also Like