প্রেমিককে বিয়ে করায় মেয়ের শ্রাদ্ধ

বাড়ির পছন্দের পাত্রকে ছেড়ে নিজের পছন্দের প্রেমিককে বিয়ে করায় মেয়ের শ্রাদ্ধ করলেন বাবা। আর তা বেশ ঘটা করেই। ঘটনা ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের হাওড়ায়।

ছেলে প্রতিষ্ঠিত নয়, ভাল ব্যবসা বা চাকরি, কিছুই নেই। বংশমর্যাদাও পিছিয়ে। এই যুক্তিতে মেয়ের প্রেমিককে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন পরিবারের সকলে। তড়িঘড়ি সুপাত্র দেখে মেয়ের বিয়েও ঠিক করে ফেলেছিলেন তারা। বিয়ের কেনাকাটা থেকে নিমন্ত্রণ, হয়ে গিয়েছিল সবই। কিন্তু বিয়ের আগেই সেই তরুণী বাড়ি থেকে পালিয়ে নিজের পছন্দের প্রেমিককে বিয়ে করেন। এরপরই মেয়ের ওপর রুষ্ট হয়ে ওঠে পরিবার। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

তরুণীটি বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার দিনেই তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন বাবা-মা। ১২ দিন পরে আয়োজন করেন মেয়ের শ্রাদ্ধানুষ্ঠানের। ঘটনাচক্রে সে দিনটি হচ্ছে শনিবার, ভালবাসার দিনে-ভ্যালেন্টাইন্স ডে তে।

এ দিন সমস্ত নিয়ম মেনে পরিবারের সমস্ত পুরুষের মাথা মুন্ডন করা হয়। রীতিমতো পুরোহিত ডেকে জীবিত তরুণীর শ্রাদ্ধানুষ্ঠান হয়। এমনকী, সাদা কাপড়ের প্যান্ডেল তৈরি করে আত্মীয়দের খাওয়া-দাওয়ারও ব্যবস্থা করেন বাবা-মা।

পুলিশ জানায়, ওই তরুণীর বাবা হাওড়ার জাগাছা থানায় তার নাবালিকা মেয়েকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশও তদন্তে যায় তরুণীর শ্বশুরবাড়িতে। কিন্তু সেখানে ওই তরুণী নিজের জন্মের সার্টিফিকেট দেখিয়ে জানান, দু’দিন আগেই তার বয়স আঠারো পেরিয়েছে। এর পরে পুলিশের আর কিছু করার থাকে না।

শনিবার ওই তরুণীর বাবার বাড়ির সামনে গিয়ে দেখা যায়, সামনের মাঠে শ্রাদ্ধবাড়ির মতো প্যান্ডেল হয়েছে। লোকজন খাওয়াদাওয়া করছেন। সব কিছু তদারকি করছেন মেয়ের বাবা ও কাকা। তাদের দু’জনেরই মাথা সদ্য মন্ডন করা হয়েছে। মেয়ের বাবা বলেন, ‘ও আমাদের মানসম্মান কিছুই রাখেনি। অনেক কষ্ট দিয়েছে। তাই আমার কাছে মেয়ে মৃত। এ জন্যই শ্রাদ্ধ করছি।’

মেয়ের কাকা বলেন, ‘আমরা এই অপমান সহ্য করতে পারিনি। এটা আমাদের প্রতিবাদ।’

অন্যদিকে মেয়ের প্রেমিক বরের বন্ধুর ভাষ্য, ‘ওদের অপরাধটা কী? ওরা ভালবেসে বিয়ে করেছে। এ জন্য জীবিত মেয়ের শ্রাদ্ধ করতে হবে?’

You Might Also Like