যুগল দেখলেই ধরে বিয়ে!

আবার আলোচনায় এলো ভারতের ধর্মাশ্রয়ী সংগঠন অখিল ভারত হিন্দু মহাসভা। ভ্যালেন্টাইন ডে-কে সামনে রেখে সংগঠনটি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, ভ্যালেন্টাইন ডে-তে কোনো প্রেমিক যুগলকে একসঙ্গে বা অন্তরঙ্গভাবে দেখা গেলে তাদের তাৎক্ষণিক বিয়ে দেওয়া হবে।

শুধু তাই নয়, সে বিয়ে হবে শাস্ত্রীয় মতে। যেখানে আত্মশুদ্ধির ব্যাপারও থাকবে বলে তাদের দাবি।

হিন্দু মহাসভার এ পদক্ষেপে উত্তর প্রদেশের পুলিশও সক্রিয় থাকবে বলে জানিয়েছিলেন হিন্দু মহাসভার সভাপতি চন্দ্র প্রকাশ কৌশিক।

তবে তাদের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শনিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ব্যাপক প্রতিবাদ জানায় দেশটির শীর্ষস্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

এদিন দিল্লির জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়সহ (জেএনইউ) বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রেমিক যুগলদের বিয়ের সাজে হিন্দু মহাসভার মন্দিরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানায় ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো।

এ ঘটনায় জেএনইউ’র ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ব্যাপক প্রতিক্রিয়া জানায়। ফেসবুকজুড়েও ব্যাপক প্রতিবাদমূলক পোস্ট ও কমেন্ট দেখা যায়।

এদিকে পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ অসংখ্য ছাত্রছাত্রীকে আটক করে পার্শ্ববর্তী দু’টি থানায় নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে কৌশিকের বক্তব্য, আমাদের সংগঠন ভালোবাসার সত্যিকার মানে বোঝাতে চায়।

প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের ছবি ফেসবুকে আপলোড হওয়ার পর অনেকেই ফেসবুকে মন্তব্য করেছেন, হিন্দু মহাসভা যা খুশি তাই করবে আর আমরা চুপচাপ বসে থাকবো তা হবে না।

আবার পুলিশি হস্তক্ষেপের দৃশ্য দেখে অনেকের মন্তব্য, পুলিশ কেন নিরীহ শিক্ষার্থীদের উপর নির্যাতন করছে! যারা মানুষের ব্যক্তিগত জীবনের উপর নিজস্ব ধ্যান-ধারণা চাপিয়ে দিচ্ছে, তাদের কেন শাস্তি দেওয়া হচ্ছে না!

You Might Also Like