আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারীরা লুটেরা বাহিনী: জামায়াত

রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ২০ দলীয় জোটের নেতৃত্বে শান্তিপূর্ণভাবে গণআন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বিনা কারণে জামায়াত ও ছাত্রশিবিরসহ ২০ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের গুলি করে হত্যা করছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী লুটেরা বাহিনীতে পরিণত হয়েছে।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন। বিবৃতিতে সাবেক এই এমপি বলেন, সরকার দেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দলীয় সন্ত্রাসী ক্যাডারের মত ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। মানুষের বাড়ী-ঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করছে। এমনকি পুলিশ টাকার লোভে মানুষ হত্যা করছে।

স্বৈরাচারী সরকারের দু:শাসন ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে দেশের সংগ্রামী জনতা ফুঁসে উঠেছে। জেলায়-জেলায় জনতা সরকারের রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সম্ভাবনায় মেধাবী ছাত্র-যুবকদের বেছে বেছে সরকার হত্যা করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ হবিবুর রহমান হল শাখা ইসলামী ছাত্রশিবিরের সভাপতি হাবিবুর রহমানকে ৬ ফেব্রুয়ারি পুলিশ আটক করে।

তারপরে তাকে গুলি করে মারাত্মকভাবে আহত করে। তাকে এখন পর্যন্ত আদালতে হাজির করা হয়নি। তার সুচিকিৎসার কোন ব্যবস্থাও করা হয়নি। তার জীবনহানির আশঙ্কায় পরিবার-পরিজন উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, সরকার বেসরকারি চ্যানেল বাংলাভিশনের জনপ্রিয় টক’শো ফ্রন্ট লাইন অনুষ্ঠানটি বন্ধ করে দিয়েছে। এভাবে সরকার মানুষের বাকস্বাধীনতা ও মতপ্রকাশের অধিকার কেড়ে নিচ্ছে।

পাশাপাশি তিনি সরকারের সকল গণবিরোধী কর্মকা-ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

You Might Also Like