আ.লীগ কি অনড় অবস্থান থেকে সরে এসেছে?

বিএনপির নেতৃত্বে ২০ দলীয় জোটের টানা হরতাল-অবরোধের মুখে কি সরকার সংলাপ নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে? ক্ষমতাসীন জোটের নেতা-মন্ত্রীরা কি তাদের অনঢ় অবস্থান থেকে কিছুটা সরে এসেছেন? জোটের কয়েকজন নেতার সাম্প্রতিক বক্তব্যে এমনই আভাস পাওয়া যাচ্ছে। বলাবলি হচ্ছে-এই বক্তব্য কি আসলে বক্তাদের নিজের নাকি সরকারের। গতকাল শনিবার ক্ষমতাসীন জোটের শরীক জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডীর সদস্য ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বক্তব্যের পর এই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। গতকাল শনিবার এক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘খালেদা জিয়াকে আগে সংলাপের বিষয় ঠিক করতে হবে। তারপর সংলাপ।’

ঢাকা রিপোর্টর্স ইউনিটিতে ‘মিট দ্যা রিপোর্টার্স’ অনষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী এই বক্তব্য দেন। এর আগে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এই হাসানুল হক ইনুই বলেছিলেন- ‘খালেদা জিয়া সন্ত্রাসের রানী। তার সঙ্গে কোনো সংলাপ নয়।’

গতকাল একই দিনে ভিন্ন এক অনুষ্ঠানে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘দেশের স্বার্থে সরকার অনড় অবস্থানে থাকবে তাও মনে করার কারণ নেই ।’

এই ‍দুই গুরুত্বপূর্ণ নেতার কথায় রাজনীতি সচেতন মহলে সুবাতাস বইছে। তারা ভাবছেন, এবার বরফ গলতে পারে। সরকার সংলাপের উদ্যোগ নিলে চলমান অস্থির অবস্থার হয়তো অবসান হবে।

জানতে চাইলে সুশাসনের জন্য নাগরিক- সুজনের সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘সরকার মধ্যে এমন উদ্যোগ থাকলে আর তো কোনো সমস্যা থাকে না। এমনটা হলে দেশের জন্য অনেক মঙ্গল।’

তবে ভিন্ন মত পোষণ করেছেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে মনে হয় না কোনো সংলাপ হবে। কারণ কারো কথায় সেনস অব ডাইরেকশন নেই।’

তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে- সরকারের অবস্থান আরও অনঢ় হয়েছে। কারণ বিরোধী দলকে আরও বেশি চাপে ফেলা হয়েছে। আর বিরোধী দলও কঠোর কর্মসূচি দিচ্ছে। আচরণ, বক্তব্য, কর্মসূচিতে সংলাপের কোনো চিহৃ নেই। আলোচনার পরিবেশ নেই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নূহ-উল-আলম লেলিন বলেন, ‘সংলাপ হতে পারে। সংলাপ তো রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে হতেই পারে। এটা নিয়ে তো কোনো দ্বিমত নেই। এখন যদি কেউ বলে মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে সংলাপ, সরকারের পতন নিয়ে সংলাপ- এসব নিয়ে সংলাপের অবকাশ নেই।’

তিনি বলেন, ‘সংলাপ হতে পারে দেশের অগ্রগতি নিয়ে। সংলাপ হতে পারে সামনে এসএসসি পরীক্ষা সেটা যাতে সুষ্ঠুভাবে হয় তা নিয়ে।’

সূত্র: ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকম

You Might Also Like