টেস্ট ছাড়ার ঘোষণা ব্রাভোর

টেস্ট ক্রিকেট থেকে অঘোষিতভাবে বাদের তালিকায় ছিলেন ডোয়াইন ব্রাভো। চার বছরেরও বেশি সময় ধরে টেস্ট দলে নেই তিনি। শেষ পর্যন্ত লঙ্গার ভার্সনে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণাই দিলেন এই ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার। তবে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে খেলা চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

 

বিশ্বকাপ দলে রাখা হয়নি ব্রাভোকে। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ থেকেও বাদ পড়েন তিনি। এর এক সপ্তাহের ব্যবধানেই টেস্ট ছাড়ার ঘোষণা আসল। ২০০৪ সালে অভিষেকের পর ২০১০ সালে সবশেষ টেস্ট খেলেন ব্রাভো। ৩১ বছর বয়সী অলরাউন্ডার মোট ৪০টি টেস্ট খেলেন। যেখানে তিনটি সেঞ্চুরি ও ১৩টি হাফসেঞ্চুরিসহ ২ হাজার দুশ রান করেন। উইকেটও পেয়েছেন ৮৬টি।

 

শুক্রবার রাতে এক বিবৃতিতে অবসরের কথা ঘোষণা দেন। ব্রাভো বলেন, ‘শেষ বছরগুলোতে অত্যন্ত আগ্রহ নিয়ে খেলেছি। আমার সেরা পারফর্ম করেছি। আমাদের সবার জন্যই এটা কঠিন এক সময়। এই অঞ্চলের মানুষ সেরা ক্রিকেট দেখেছে। যতক্ষণ আমরা খেলার প্রতি ভালবাসা না দেখাব ততক্ষণ ঐতিহ্যে ফিরতে পারব না। যারা এতোদিন সমর্থন করেছেন তাদেরকে ধন্যবাদ। ক্যারিবীয় ক্রিকেট তাদের জন্য গর্ব করে।’

 

সাম্প্রতিক সময়ে ভারত থেকে সিরিজ বাতিলের অন্যতম হোতা ধরা হয় ব্রাভোকে। সিরিজের আগে ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব দেয়া হয়েছিল তার কাঁধে। খেলোয়াড়দের মুখপাত্র হিসেবে তখন কাজ করেন এই অলরাউন্ডার। মাঝপথে ভারত থেকে ফিরে যাওয়ায় কঠিন চাপে পড়তে হয়েছে ক্যারিবীয় ক্রিকেট বোর্ডকে। ইতিমধ্যে ভারত আগামী পাঁচ বছর দ্বিপাক্ষিক সফর স্থগিত করেছে। একইসঙ্গে বড় অঙ্কের আর্থিক ক্ষতিপূরণের জন্য চাপ দিচ্ছে।

You Might Also Like