`সরকারের রোষানলে পড়ে দূর্বিসহ যন্ত্রণা কোকোকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে’

কানাডা বিএনপি’র শোক সভায় টেলিকনফারেন্সে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান বলেছেন সরকারের রোষানলে পড়ে দূর্বিসহ যন্ত্রণা কোকোকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে।
শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এবং সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় শোকসভা ও দোয়া মাহফিল কানাডার টরন্টোস্থ ড্যানফোর্থ এভিনিউ-এর রেস্টুরেন্টের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার শোক সভা শেষে আরাফাত রহমান কোকোর রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়ার আগে মরহুমের জীবনের বিভিন্ন দিকের ওপর আলোকপাত করে কানাডা বিএনপির নেতারা বক্তব্য রাখেন। কানাডা জিয়া নাগরিক ফোরামের সভাপতি মোহাম্মদ রফিকুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন প্রধান অতিখি হিসেবে হোসেন সামাদ চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসেবে কানাডা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও অন্টারিও বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি মুজিবর রহমান, কানাডা বিএনপি’র সাবেক সদস্য সচিব ও অন্টারিও বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক এজাজ আহমেদ খান, টরন্টো সিটি বিএনপি’র সাধারণ সংগঠনিক সম্পাদক ও কানাডা বিএনপি’র সংগঠনিক সম্পাদক জাকারিয়া চৌধুরী এবং কানাডা মহিলা দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি নাজমা হক। অন্যান্যদের মধ্যে অংশগ্রহণ করেন সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম সোহরাব হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা শাহাব উদ্দিন আহমেদ, টরন্টো সিটি বিএনপি’র সাধারণ সংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহিদ মুরাদ, বাবেল চৌধুরী, রিফাত চৌধুরী, ইশরত চৌধুরী, কানাডা বিএনপি’র অন্যতম নেতা অনিসুর রহমান খান, রাজিয়া চৌধুরী, জাকিয়া আলম, নিউইয়র্ক ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ আহমেদ খান, কানাডা বিএনপি’র যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুল ইসলাম, ডা: কারী মাহমুদ, জাকারিয়া হোসেন, হাফিজউদ্দীন, কানাডা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক রেহানা আখতার, জাকিয়া আলম, সামিউল আলম, মোহাম্মদ উদ্দিন, শাহজাহান উদ্দিন প্রমূখ।
টেলিকনফারেন্সে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস-চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান বলেন, রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত না থেকেও আরাফাত রহমান ওয়ান-এলেভেনের সেনা সমর্থিত সরকার এবং শেখ হাসিনা সরকারের রোষানলে পড়ে জীবনের শেষ সাতটি বছর প্রবাসে দুর্বিসহ যন্ত্রণার মধ্যে কাটাতে বাধ্য হয়েছেন।
নির্যাতনে নিষ্পেষনে ক্ষত-বিক্ষত শরীর এবং মা-ভাইকে ছেড়ে প্রবাসের দুঃখময় জীবন তাঁকে তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়। জোটনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পুত্র শোককে শক্তিতে পরিনত করে ও চলমান আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণাকে অত্যন্ত সময়োপযোগী দাবি করে তিনে বলেন, যেখানে হাজার হাজার কোকো পুলিশ প্রশাসন ও শাসক দলের ক্যাডারদের নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছে, সে সময় হাজার হাজার কোকো কারাগারে বন্দী, শহীদ জিয়ার আদর্শের সেই সব সেনাসীদের বেগম খালেদা জিয়া সবচেয়ে অগ্রাধিকার দিয়েছেন। এখন কোকো হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনার সংগ্রামে আমাদেরকে বিজয়ী হতে হবে। বক্তব্য শেষে মাওলানা আমিনুর রহমান মোনাজাত পরিচালনা করেন। দোয়ার সময় গভীর শোকাবহ পরিবেশের সষ্টি হয়।
অনুষ্ঠানটি সফলভাবে পরিচালনা করেন কানাডা যুব দলের সভাপতি আলহাজ্ব মাশরুল হোসেন রিপন।

You Might Also Like