তিন ম্যাচ মাঠের বাইরে থাকতে হতে পারে রোনালদোকে (ভিডিও)

এমন কাজ কীভাবে করতে পারলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো? কর্দোবার বিপক্ষে ম্যাচের ৮২ মিনিটের সময় একটি ব্যর্থ আক্রমণে হঠাৎই হারিয়ে বসলেন মেজাজ। প্রতিপক্ষের এদিমার নামের এক খেলোয়াড়কে মেরে বসলেন দৃষ্টিকটু এক লাথি। রোনালদোর লাথির ধরন এতটাই বাজে ছিল যে ম্যাচের রেফারি তাঁকে মার্চিং অর্ডার না দিয়ে পারেননি।
ক্ষণিকের উন্মাদনায় নিজের ওই আচরণ পোড়াচ্ছে খোদ রোনালদোকেও। ঘটনার পর মাথা ঠান্ডা করে অনুশোচনায় হয়েছেন দগ্ধ। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে এদিমারের কাছে ক্ষমাও প্রার্থনা করেছেন তিনি। কিন্তু তাঁর অনুশোচনা কিন্তু চিড়ে ভেজাচ্ছে না। এ ঘটনায় তিন ম্যাচ পর্যন্ত মাঠের বাইরে থাকতে হতে পারে তিনবারের ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারকে। ফুটবল মাঠে ফাউল হতে পারে, লাল কার্ডও হতে পারে, কিন্তু রোনালদোর কাণ্ড যেকোনো বিচারেই ভব্যতার মাত্রাকে ছাড়িয়ে যায়।
টুইটারে এদিমারের কাছে ক্ষমা চেয়ে রোনালদোর পোস্টটা ছিল অনেকটা এমন, ‘আজকের ম্যাচে আমার এই অভাবনীয় বাজে আচরণের জন্য আমি সবার কাছে, বিশেষ করে এদিমারের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। ‘
কর্দোবার বিপক্ষে কাল বেশ কষ্টার্জিত জয়ই পেতে হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদকে। রোনালদো যখন মাথা গরম করে বসেন, তখন পয়েন্ট ভাগাভাগির আশঙ্কায় বিহ্বল রিয়াল-ভক্তরা। ম্যাচ এগিয়ে চলেছে ১-১ গোলে। ওই সময় মাথা গরম থাকাটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে অস্বাভাবিক ব্যাপার হলে রোনালদোর মতো তারকার হঠাৎ এমনি দৃষ্টিকটু আচরণের বহিঃপ্রকাশ। ব্যালন ডি’অরটা জিতলেও বান্ধবী ইরিনার সঙ্গে সম্পর্কছেদের বিষয়টি কি বড় প্রভাব রেখে গেল রোনালদোর জীবনে?
দেখে নেয়া যাক পর্তুগিজ সুপারস্টারের লাল কার্ডের খতিয়ান।
প্রথম লাল কার্ড : ২০০৪ সালের ১৫ মে অ্যাস্টন ভিলার বিপক্ষে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো প্রথম লাল কার্ড দেখেন। ওই ম্যাচে অবশ্য ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ২-০ গোলে জয় লাভ করে।
দ্বিতীয় লাল কার্ড : ২০০৬ সালের ১৪ জানুয়ারি ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে দ্বিতীয় লাল কার্ড দেখেন তিনি। ওই ম্যানচেস্টার ডার্বিতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড হেরে যায় ৩-১ ব্যবধানে।
তৃতীয় লাল কার্ড : ২০০৭ সালের ১৫ আগস্ট পোর্টসমাউথের বিপক্ষে। ম্যাচটি ড্র হয়।
চতুর্থ লাল কার্ড : ৩০ নভেম্বর ২০০৮, ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে। ম্যাচটি ম্যানইউ ১-০ গোলে জিতে নেয়।
পঞ্চম লাল কার্ড : ২০০৯ সালের ৫ ডিসেম্বর স্প্যানিশ লা লিগায় আলমেরিয়ার বিপক্ষে। ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ জয়লাভ করে ৪-২ গোলে।
ষষ্ঠ লাল কার্ড : ২০১০ সালের ২৪ জানুয়ারি মালাগার বিপক্ষে। ম্যাচে রিয়াল ২-০ গোলে জয় পায়।
সপ্তম লাল কার্ড : ২০১৩ সালের ১৭ মে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। মাদ্রিদ ডার্বিটি রিয়াল হেরে যায় ২-১ ব্যবধানে।
অষ্টম লাল কার্ড : ২০১৪ সালের ২ ফেব্র“য়ারি অ্যাথলেটিক বিলবাও এর বিপক্ষে। ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়।
নবম লাল কার্ড : ২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি কর্ডোবার বিপক্ষে রোনালদো তার ক্যারিয়ারের নবম লাল কার্ড দেখেন। ম্যাচটি অবশ্য রিয়াল ২-১ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে।

You Might Also Like