রাজধানীর কূটনৈতিক জোনে গণপরিবহন প্রবেশ বন্ধ

রাজধানীর কূটনৈতিক জোন গুলশান বনানী ও বারিধারায় গণপরিবহন প্রবেশ বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। তবে গুলশান থেকে বের হতে পারছে গণপরিবহন। মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার চলাচল করতে পারলেও ব্যাপক তল্লাশির মুখে পড়তে হচ্ছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, পুলিশ অনেকটা ‘রণসাজে’ অবস্থান করছে।
কিছু তথ্য পেয়ে নিরাপত্তার স্বার্থে সাময়িক সময়ের জন্য এটা করা হয়েছে বলে দাবি করছে পুলিশ।
রোববার সকাল থেকে ওইসব এলাকায় সকল ধরনের গণপরিবহন প্রবেশ বন্ধ রাখা হয়েছে।
গুলশান থানার ওসি রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে কিছু তথ্য রয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে সাময়িক সময়ের জন্য এটা করা হয়েছে।’ গুলশান বনানী ও বারিধারায় এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।
তবে এ ব্যবস্থা কতদিন বা কতক্ষণ বলবৎ থাকবে তা জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন ওসি।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, গুলশান-২ নম্বরের সকল প্রবেশমুখে ব্যারিকেড দিয়ে রাখা হয়েছে। বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। কোনো ধরনের গণপরিবহনকেই ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।
গুলশান-২ এ যাতায়াতের জন্য উল্লেখযোগ্য গণপরিবহন দিবানিশি, বিহঙ্গ, রবরব, গ্রামীণ পরিবহনকে কাকলীতেই থামিয়ে দেয়া হচ্ছে। ফলে অফিসগামী মানুষকে পায়ে হেঁটে পৌঁছাতে হচ্ছে গুলশান-২ এবং আশপাশের নিজ নিজ কর্মস্থলে।
গুলশান অভিমুখে গাড়ি থামিয়ে দেয়া হচ্ছে কাকলী ও নতুন বাজারে। ব্যারিকেড বসানো হয়েছে গুলশান-২ এ প্রবেশের সকল পথে।
তবে গুলশান থেকে বের হতে পারছে যেকোন গণপরিবহন। প্রাইভেট কারে নিষেধাজ্ঞা নেই তবে তল্লাশির মুখে পড়তে হতে হচ্ছে কয়েক জায়গায়।
সূত্রটি জানায়, আগে কাকলীতে পুলিশ ছিল না। আজ ব্যারিকেড ও পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। অনেকটা রণসাজে অবস্থান নিয়েছে পুলিশ।

You Might Also Like