বগুড়ায় অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ : ১৪ জন আটক

বগুড়ায় অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। এ সংঘর্ষের ঘটনায় ১৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার সকালে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ারসেল, রাবার বুলেট ও শর্টগানের অর্ধশতাধিক রাউন্ড গুলি ছুড়েছে।

এসময় ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় অবরোধকারীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিএনপি নেতাকর্মীরা শনিবার সকাল ১০টার দিকে শহরের মাটিডালি বিমান মোড়ে অবরোধের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে।

সমাবেশ শেষে পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের আটকের চেষ্টা করলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ার সেল ও শর্টগানের গুলি ছুড়লে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

এসময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ২৫-৩০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় অবরোধকারীরা। একপর্যায়ে অবরোধকারীরা পিছু হটলে পুলিশ গণগ্রেফতার শুরু করে।

এসময় মাটিডালি মোড়ের বিভিন্ন হোটেল ও দোকান থেকে সাধারণ মানুষকে আটক করে পুলিশ।

গণগ্রেফতারের খবর ছড়িয়ে পড়লে পার্শ্ববর্তী গ্রাম থেকে বিপুল সংখ্যক গ্রামবাসী দ্বিতীয় বাইপাস সড়কে অবস্থান নেয়। পুলিশ শর্টগানের ফাঁকা গুলি ছুড়ে বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসীকে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের তথ্যমতে, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় পুলিশ কমপক্ষে অর্ধশত রাউন্ড রাবার বুলেট ও শর্টগানের গুলি ছুড়েছে।

বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল বলেন, শান্তিপূর্ণ সমাবেশ শেষে নেতাকর্মীরা যখন এলাকা ছেড়ে চলে যাচ্ছিলেন সেই সময় হঠাৎ পুলিশ নেতাকর্মীদের ধাওয়া করে নিশিন্দারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামসহ ১৪ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে।

বগুড়া সদর থানার (ওসি) আবুল বাসার জানান, অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ৯ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুড়েছে। এসময় ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

You Might Also Like