রক্তাক্ত সেই স্কুল খুলে দেওয়া হলো

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া রাজ্যের রাজধানী পেশোয়ারে রক্তে ভেজা সেই আর্মি পাবলিক স্কুলে আবার ফিরেছে শিক্ষার্থীরা। সোমবার খুলে দেওয়া হয়েছে স্কুলটি।
পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল রাহেল শরিফ এ দিন স্কুলের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে ভীতি দূর করতে তাদের সঙ্গে গল্প করেন তিনি।
তবে এক দিনেই তো আর সেই বীভৎস রক্তাক্ত স্মৃতি ভোলা যাবে না। তালেবান জঙ্গিরা হামলা চালিয়ে শিশুশিক্ষার্থীদের সামনে মর্মান্তিকভাবে খুন করেছে তাদেরই সহপাঠী-বন্ধুদের। স্কুলটির ৫০০ শিক্ষার্থীর মধ্যে আজ ১৪২ জন আসবে না। তারা আর কোনো দিনই আসবে না। গত ১৬ ডিসেম্বর তালেবানের বর্বর বন্দুক-বোমা তাদের পাঠিয়ে দিয়েছে চিরতরে না ফেরার দেশে।
আর্মি পাবলিক স্কুলের প্রধান শিক্ষিকাও আর কোনো দিনই তার প্রাণের শিক্ষার্থীদের মাঝে ফিরবেন না। তিনিও তার শিশুশিক্ষার্থীদের সঙ্গে খুন হন তালেবান হামলায়। গত মাসের সেই হামলায় মোট ১৪৯ জন মারা যায়।
এদিকে আর্মি পাবলিক স্কুলে হামলার পর থেকে খাইবার পাখতুনখোয়া রাজ্যের সব স্কুল-কলেজ একযোগে বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়ার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার জন্য পাকিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।
ডন অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিরাপত্তা নিশ্চিতের শর্তগুলো পূরণ করতে পারেনি। কারণ সব প্রতিষ্ঠানের সেই সামর্থ নেই। ফলে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ছাড়াই সোমবার থেকে খোলা হয়েছে অনেক স্কুল-কলেজ। আতঙ্ক-উৎকণ্ঠা নিয়েই বিদ্যালয়ে পা রাখা শুরু করেছে খাইবারের শিশুশিক্ষার্থীরা। সন্তানদের স্কুলে পাঠিয়ে বাড়িতে বাড়িতে প্রার্থনা করছেন অভিভাবকরা।

You Might Also Like