নিজ ঘরে সাঁওতাল ছাত্র নেতাকে গলাকেটে হত্যা

রাজশাহীর তানোর উপজেলায় গভীর রাতে এক সাঁওতাল ছাত্র নেতাকে তার বাসায় ঢুকে গলাকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
নিহত বাবলু হেম্রন (২৭) রাজশাহী কলেজের সমাজ বিজ্ঞানের স্নাতকোত্তরের ছাত্র। তিনি ওই কলেজের আদিবাসী ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি ও সান্তাল স্টুডেন্ট ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।
বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তানোরের মুণ্ডুমালা পৌরসভার ময়েনপুর গ্রামে নিজের বাসায় তাকে হত্যা করা হয়।
তানোর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, শুক্রবার সকালে বাবলুর মাথা কাটা খণ্ডিত লাশটি তার শোওয়ার ঘর থেকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেলে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়।
“শোওয়ার ঘরে ঢুকে দুর্বৃত্তরা তাকে (বাবলু) জবাইয়ের পর মাথা আলাদা করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। গভীর রাতে তার বাবা-মা শব্দ শুনে ঘরে গিয়ে ছেলের দেহ পড়ে থাকতে দেখেন। ঘরের দরজাও ভাঙ্গা পাওয়া গেছে” বলেন ওসি।
এ ঘটনায় এখনও কাউকে আটক করা হয়নি। পুলিশ ও রাজশাহী সিআইডি বিভাগের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা আনোয়ার বলেন, দুই মাস আগে স্নাতকোত্তর ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে বাবলু বাড়িতেই ছিলেন।
“তাৎক্ষণিকভাবে এ হত্যাকাণ্ডের কোনো ক্লু পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। নিহতের পরিবারের সদস্য ছাড়াও আশপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।”
বাবলুর বাবা মহেশ্বর হেম্রন বলেন, “বাবলু ভাল ফুটবল খেলোয়াড় ছিল। গ্রামে তাদের পরিবার বা তার ছেলের সঙ্গে কারো কোনো বিরোধ নেই।
“রাজশাহী কলেজে রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল। রাজনৈতিক কারণে তাকে হত্যা করা হতে পারে।”

You Might Also Like