নারী কর্মীদের নগ্ন করে তল্লাশি!

দক্ষিণ ভারতের কেরালা অঙ্গরাজ্যের বন্দর নগরী কোচিনের একটি হ্যান্ড গ্লভস তৈরিকারী কোম্পানিতে ৩০ নারী কর্মীকে নগ্ন করে তল্লাশি চালানোর মতো জঘন্য হেনস্থামূলক কাণ্ড ঘটেছে। ওয়াশরুমে একটি ব্যবহৃত স্যানিটারি ন্যাপকিন ফেলে আসায় কে ওই কর্ম করেছে তা বের করতেই ওই নগ্ন তল্লাশি চালায় কোম্পানিটির অপর তিন নারী কর্মী। কার ঋতুস্রাব হচ্ছিল তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য তারা একে একে সকলকে নগ্ন করে তল্লাশি চালায়।

কোচিনের পুলিশ বিভাগ আজ বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, নারীর শ্লীলতা হানির অপরাধ সংশ্লিষ্ট ভারতীয় পেনাল কোডের (আইপিসি) ৩৫৪ ধারাসহ বেশ কয়েকটি ধারায় ওই ঘটনার মূল হোতা অপর তিন নারী কর্মীর বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা নিবন্ধিত হয়েছে।

কোচিন বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের (সিএসইজেড) উন্নয়ন কমিশনারও ঘটনাটির তদন্তে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। গত ১০ ডিসেম্বর আসমা রাবার প্রাইভেট লিমিটেড নামক হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটার এবং বৈজ্ঞানিক গবেষণার সময় ব্যবহৃত গ্লভস উৎপাদনকারী একটি কোম্পানিতে এই ঘটনা ঘটে। কিন্তু মাত্র গত কয়েকদিন আগে ওই ঘটনার শিকার নারী কর্মীরা পুলিশে অভিযোগ দায়েরের পরই শুধুমাত্র তা জনগনের দৃষ্টিগোচরে আসে।

এ ঘটনা ফাঁস হওয়ার পর নারী অধিকার কর্মীরা এহেন জঘন্য কাজের তীব্র নিন্দা জানায়। পুলিশ ও তদন্ত কমিটি বিষয়টি নিয়ে গড়িমসি করায় নারী অধিকার কর্মীরা তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলেন। নারী অধিকার কর্মীদের আন্দোলনের চাপের মুখে গতকাল কোম্পানিটির কর্তৃপক্ষ এ ঘটনার জন্য দায়ী এক সুপারভাইজার, সহকারী সুপারভাইজার এবং তাদের অধীনস্ত আরেক নারী কর্মীকে বরখাস্ত করতে বাধ্য হয়।

অবশ্য তদন্ত শেষ হওয়ার পরই অভিযুক্ত ওই তিন নারীর চুড়ান্ত ভাগ্য নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন, কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিওয়াইএ রহিম।

কোম্পানিটির যে ইউনিটে ওই ঘটনা ঘটেছে সেটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।

You Might Also Like