রাজপথে আ.লীগের নেতা-কর্মীরা

সোমবার বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল চলছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি বাড়ছে, বাড়ছে ভিড়।
সোমবার সকাল ১০টা পর্যন্ত সরেজমিনে এই চিত্র দেখা গেছে।
সকাল সাড়ে ৮টার পর থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের সামনে জমায়েত শুরু করে সম্মিলিত আওয়ামী সমর্থক জোটের নেতা-কর্মীরা। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং জোটের চেয়ারম্যান আবদুল হক সবুজের নেতৃত্বাধীন এই জোট এভিনিউ চত্বরে সমাবেশ করতে থাকে। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আসেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ এবং কার্যনির্বাহী সদস্য হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন। এরপর আসেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা জি এম আতিক।
নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন, ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের হরতালবিরোধী শ্লোগানের তীব্রতা বাড়তে থাকে।
এরপর সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আসেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। এসময় বঙ্গবন্ধু চত্বরে বাড়তে থাকে বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতাল প্রতিরোধের শ্লোগান ও আওয়াজ।
এ ছাড়া কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার আসার কথা রয়েছে।
প্রসঙ্গত, গাজীপুরে খালেদা জিয়াকে সমাবেশ করতে না দেওয়া, বিএনপি নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ২৪ ঘণ্টার হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করে দলটি।
হরতালের সমর্থনে রোববার বিকেল থেকেই শুরু হয় যানবাহন ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ককটেল বিস্ফোরণে এক নারী আহত হন। মিরপুরের কাজীপাড়ায় সিএনজিচালিত অটোরিকশায় পেট্রল বোমা বিস্ফোরণে একই পরিবারের তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপরদিকে হরতাল প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। হরতালকে কেন্দ্র করে যে কোনো নাশকতা ঠেকাতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়েছে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী। রোববার রাত থেকেই ঢাকাসহ সারা দেশে মোতায়েন করা হয়েছে বিজিবি।

You Might Also Like