জর্জিয়ার বিভক্ত আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে

রুমী কবির, আটলান্টা :  অবশেষে অনেক চড়াই উৎরাইয়ের পর জর্জিয়া আওয়ামীলীগের দুটি পৃথক কমিটি ঐক্যবদ্ধ হতে যাচ্ছে বলে নির্ভরযোগ্য সুত্র থেকে খবর পাওয়া গেছে। আর এটি কার্যকর হলে জর্জিয়ার কমিউনিটিতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত প্রবাসী বাংলাদেশিরা  নতুন প্রেরণায় শক্তিশালী হয়ে প্রবাসে ইতিবাচক ভুমিকা রাখতে পারবে বলে অনেকেই মনে করছেন।

উল্লেখ্য, গত ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ঐক্যবদ্ধ সম্মেলনের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে একটি সর্বজনীন কমিটি গঠনের কথা থাকলেও নেতা কর্মীদের মধ্যে মত পার্থক্যের কারণে সেই যাত্রায় অপ্রত্যাশিতভাবে জর্জিয়া আওয়ামীলীগ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছিল। এরপর দীর্ঘ সময়ে বেশ কয়েকবার চেষ্টা তদবির করেও আওয়ামী পরিবারকে একই ছাতার নিচে আর একত্রিত করা  সম্ভব হয়নি।

জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে জর্জিয়া আওয়ামীলীগের উভয় কমিটির নেতা কর্মীগণ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার লক্ষে প্রবাসে আন্তর্জাতিকভাবে স্বদেশের ভাবমূর্তিকে যথার্থভাবে তুলে ধরার মাধ্যমে প্রবাসীদের নিয়ে গঠনমূলক কাজ করে যাওয়ার ক্ষেত্রে ঐক্যের যে কোন বিকল্প নেই, এই সত্যটি তীব্রভাবে অনুধাবন করছিলেন। আর সেই আলোকে গত কয়েকদিন ধরে একটি ফর্মুলা বের করার চেষ্টায় ছিলেন উভয় কমিটির নেতা কর্মীগণ। অবশেষে এম মওলা দিলু ও মাহমুদ রহমানের নেতৃত্বাধীন কমিটির পক্ষ থেকে সিনিয়র নেতা মশিউর রহমান চৌধুরী এবং মোহাম্মদ আলী হোসেন ও শেখ জামালের নেতৃত্বাধীন কমিটির পক্ষ থেকে দলের সাবেক সাধারন সম্পাদক হুমায়ুন কবির কাওসার- এই দুইজনকে ঐক্যের প্রক্রিয়াটিকে কার্যকর করার জন্যে একটি ঐক্যবদ্ধ কমিটি করার দায়িত্ব প্রদান করা হয় বলে জানা গেছে। এরপর এই দুই নেতা গত কয়েকদিনে দফায় দফায় যৌথ বৈঠক ও নানা আলোচনা পর্যালোচনার পর একটি যুতসই ফর্মুলা বের করে সেই মোতাবেক ঐক্যবদ্ধ কমিটি গঠনের প্রক্রিয়াটি প্রায় শেষ করে এনেছেন বলে বলে প্রকাশ। এই দুই সমন্বয়কারী নেতার মতে, যেহেতু তাঁরা দুইজন যার যার গ্রুপের পক্ষ থেকে প্রতিনিধি হয়ে ঐক্যবদ্ধ কমিটি গঠনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বটি লাভ করেছেন এবং তাঁদের এই দুইজনের উপরই স্ব স্ব গ্রুপের তথা পুরো আওয়ামী পরিবারের নেতা-কর্মীদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে, আর একারনেই অনেক চিন্তা ভাবনা, বিচার বিশ্লেষণ আর হিসেব নিকেশের পরই যৌথভাবে প্রক্রিয়াটি প্রায় চূড়ান্ত করে আনা হয়েছে।

নির্ভরযোগ্য সুত্র মতে জানা যায়, দুই সমন্বয়কারীর সম্পন্নকৃত ঐক্যবদ্ধ কমিটির ঐ ডকুমেন্ট আটলান্টায় অবস্থানরত জর্জিয়া আওয়ামীলীগের বেশ কয়েকজন সিনিয়র নেতার সমর্থনসহ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ডাঃ মুহাম্মদ আলী মানিকের কাছ থেকে অনুমোদন নেয়ার পর যথাযথভাবে যুক্তরাষ্ট্র কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে।

এখন যুক্তরাষ্ট্র কমিটির চূড়ান্ত অনুমোদন হলেই আগামীতে একটি জাঁকজমকপূর্ণ সম্মেলন বা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশিষ্ট অতিথিদের উপস্থিতিতে সেই ঐক্যবদ্ধ কমিটি আত্মপ্রকাশ করতে পারে বলে এই দুই সমন্বয়কারী নেতা মনে করছেন।

জানা যায়, এই ঐক্য প্রক্রিয়ার পূর্ব পর্যন্ত জর্জিয়া আওয়ামী লীগের দুটি অংশই নিজ নিজ অবস্থানে থেকে আলাদা ভাবে তাদের কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছিলো I কিন্তু  অন্য একটি বিশ্বস্ত সুত্র মতে, দুটি পৃথক দল নানা কর্মকাণ্ডে  সক্রিয় থাকার পরও বাস্তবে কোন অংশেরই অনুমোদন বা গ্রহণযোগ্যতা ছিলনা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে।

এদিকে ঐক্যবদ্ধ নতুন কমিটির নেতৃত্বে কে কে আসছেন, জানতে চাওয়া হলে দুই সমন্বয়কারী প্রতিনিধির কেউই  এব্যাপারে মুখ খোলেন নি। তবে যুক্তরাষ্ট্র কমিটির তরফ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্যে আরও কয়েকটা দিন অপেক্ষা করতে অনুরোধ করেন এই দুই নেতা।

কাজেই জর্জিয়ায় বসবাসরত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ বাংলাদেশিগণ এখন সেই প্রত্যাশিত চমকটি দেখার জন্যেই দিন গুনছেন। অপেক্ষা শুধু মাহেন্দ্রক্ষণের।

You Might Also Like