স্বামীকে মৃত ঘোষণা করে এক নারীর গোপন অভিসার

পুরুষ বদলের নেশায় উন্মত্ত এক নারী কর্তৃক স্বামীকে সর্বশান্ত এবং মৃত ঘোষণা করে তৃতীয়বার পরকীয়ায় পুরুষকে গোপনে বিবাহ করার ঘটনায় ঝালকাঠির নলছিটিতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এই মহিলার নাম হোসনেয়ারা বেগম। পরিত্যক্ত স্বামীর নাম-সুলতান খান, গ্রামঃ উত্তর পাওতা, ইউনিয়নঃ কুলকাঠী, উপজেলাঃ নলছিটি। ওই নারীর বর্তমান (৩য় বিবাহ’র) নিকাহনামানুযায়ী পিতার নামঃ এসকান্দার আলী হাওলাদার, মাতাঃ মৃতঃ কুলসুম বেগম, সাং- চাদকাঠী পুলিশ লাইন রোড, ঝালকাঠী সদর, ঝালকাঠী।
বর্তমানে যাকে ওই নারী বিবাহ (৩য় বার) করেছে তার নাম- মোঃ জাকির হোসেন, পিতাঃ মৃতঃ মোন্তাজ উদ্দিন হাওলাদার, মাতাঃ রওশন আরা বেগম, সাং- মানপাশা, ইউনিয়নঃ কুশংগল, উপজেলাঃ নলছিটি, জেলাঃ ঝালকাঠী। পাওতার সুলতান খান’র সাথে বিয়ের আগে হোসনেয়ারা আরেকটি বিবাহ করেছিল। হোসনেয়ারা বেগম তার স্বামী সুলতান খানের অজান্তে ও তাকে কৌশলে অন্ধকারে রেখে পর পুরুষ জাকির হোসেনের সাথে বহুদিন ধরে গোপন অভিসার চালিয়ে আসছিলো। কিছুদিন পূর্বে গোপনে তারা বিবাহ সম্পন্ন করে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হোসনেয়ারা’র তিন ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। মেয়েকে বিয়ে দেয়া হয়েছে। এবং সেখানে তার নাতী রয়েছে। উশৃঙ্খল নারী একদিকে জাকিরের সাথে নস্টামি করেছে অন্যদিকে স্বামী সুলতানের কাছ থেকে টাকা পয়সা ও মূল্যবান সম্পদ কৌশলে হাতিয়ে নিয়ে পরকীয়া প্রেমিকের কাছে জমা রেখেছে। এমনকি তাদের বিবাহিত মেয়ে-জামাইকে ফার্নিচার বানিয়ে দেয়ার নাম করে মূল্যবান বড় বড় গাছ কেটে নিয়ে গেছে হোসনোয়ারা। ধুরন্ধর নারী বর্তমান নিকাহ নামায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্রতারনার আশ্রয় নিয়েছে। মেয়ের ঘরে নাতি থাকা সত্বেও হোসনেয়ারা নিকাহনামায় তার বয়স ৪০ দেখিয়েছে। কিন্তু জন্ম তারিখ দেয়নি। অন্যদিকে পরকীয়া প্রেমিক জাকির এর বয়স নিকাহ নামায় উল্লেখ না করে তার জন্ম তারিখ ১৯৭২ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি লেখা হয়েছে।
ঘৃনিত যে মিথ্যাচার করেছে তা হলো- নিকাহনামায় সে নিজেকে বিধবা লিখেছে, অথচ তার স্বামী জলজ্ব্যন্ত জীবিত এবং সে স্ত্রী-সংসার-সম্পদ হারিয়ে এখন দিশেহারা সর্বশান্ত পাগলপ্রায়। এলাকাবাসী হোসনেয়ারার পাশাপাশি নারীলোভী ও সম্পদলোভী লম্পট জাকির হোসেনকেও এই ঘটনার কারিগর ও অপরাধী হিসাবে মনে করছে। নিজ এলাকা ছেড়ে বরিশাল নগরে ১৪নং ওয়ার্ডের কাজী অছিউর রহমান ত্বহা’র মাধ্যমে তারা নিকাহ সম্পন্ন করে।

You Might Also Like