প্রধানমন্ত্রীর অফিসের সামনে তরুণীর আত্মহত্যার চেষ্টা

প্রধানমন্ত্রীর অফিসের সামনে আত্মহত্যার আগুনে পুড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন এক তরুণী। তবে কি কারণে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ওই তরুণী একেকবার একেক রকম তথ্য দিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করলে পুলিশ তাকে আটক করে। ওই তরুণীর নাম কামরুন নাহার শিমু। তিনি ইডেন মহিলা কলেজের অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।

তেজগাঁও থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুর রহমান গণমাধ্যমকে জানান, শরীরে কেরোসিন ঢেলে, আগুন জ্বালিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করছিলেন শিমু। বিষয়টি দেখে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ তাকে আটক করে।

প্রধানমন্ত্রীর অফিসের সামনে কেন তিনি আত্মহত্যা করতে গেলেন এ বিষয়ে শিমুর বরাত দিয়ে এসআই সাইফুর রহমান জানান, শিমুর পিতা তার লেখাপড়ার খরচ দিচ্ছিলেন না। তিনি তাকে মারধর করতেন। পিতাকে শাস্তি দিতেই আত্মহত্যা করে প্রধানমন্ত্রীকে তা অবগত করতে চেয়েছিলেন শিমু। তবে এ বিষয়ে তিনি একেক সময় একেক রকম তথ্য দিচ্ছেন বলে জানায় পুলিশ।

আটক হওয়ার পর পুলিশের কাছে শিমু একবার জানিয়েছেন, তার পিতা তাকে পছন্দের পাত্রের সঙ্গে বিয়ে দিচ্ছেন না। পিতার বিরুদ্ধেই তিনি তার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এ ঘটনায় তার পিতার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি গণমাধ্যমে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

শিমুর পিতার নাম আবুল কাশেম। তিনি শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি থানার চেংগুরিয়া মাস্টার বাড়ির বাসিন্দা। শিমু রাজধানীর আজিমপুরের পলাশী ২২/বি এর একটি বাসায় থেকে লেখাপড়া করেন।

You Might Also Like