‘ভারোবেসেও হাত ধরা হয়নি ৫ বছর’

ভালোবাসা জাত-কূল, ধর্ম ও সমাজের বাধা মানে না। ভালোবাসার টানে প্রেমিক-প্রেমিকা সবকিছু ছাপিয়ে দুজনে দুজনার হয়েই থাকতে চায়।

কিন্তু ঘটনা বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে মিসরের প্রেমিক-প্রেমিকাদের বেলায়। দুজন দুই ধর্মের। একজন মুসলমান আর আরেকজন খ্রিষ্টান। দুই ধর্মের মানুষই মিসরে দীর্ঘদিন থেকে একসাথে মিলেমিশে বাস করছে।

সমাজের বাধা থাকলেও সম্পর্কের পরিণতিতে পৌঁছানো অসম্ভব ছিল না। সমাজে ছিল উদারতা। কিন্তু স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের পতনের পর থকে এই চিরচেনা দৃশ্যে পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। ধর্মীয় ব্যাপারে অসহিষ্ণুতা মিসরের সমাজে এখন ক্রমবর্ধমান।

তারেক ও হোউদিয়ার প্রেমের মধ্যদিয়ে সমাজের এমন ছবিটিই পরিলক্ষিত হচ্ছে। তারেক মুসলমান আর হোউদিয়া কপটিক খ্রিষ্টান ধর্মের। দুজনেই একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক থাকার পরও দুজন দুজনার হাত পর্যন্ত স্পর্শ করার সুযোগ পায়নি।

প্রেম সম্পর্কে তারেক জানিয়েছেন, আমাদের সম্পর্ক পাঁচ গড়ালেও দুজন দুজনার হাত পর্যন্ত স্পর্শ করতে পারিনি। তার পরিবারে বিয়ের প্রস্তাব দেয়াটা ছিল তার চেয়েও বড় চ্যালেঞ্জ। প্রেমের প্রস্তাব দেয়ার সময়ই আমি খুবই দ্বিধাগ্রস্ত ছিলাম। হোউদিয়া রাজি না হওয়াটাই ছিল আরেকটি কারণ। এটা ছিল সমাজের নিয়মের বাইরে। তারপরও হোউদিয়া আমার প্রস্তাবে রাজি হয়েছিল। তবে এটা ছিল আমার প্রত্যাশারও বাইরে। সূত্র : বিবিসি

You Might Also Like