চার কেন্দ্রকে নিয়ে সার্কে পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র

সার্কের বিদ্যমান চার কেন্দ্রকে নিয়ে গঠিত হতে যাচ্ছে সার্ক পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র। বনায়ন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, উপকূলীয় ব্যবস্থাপনা অঞ্চল এবং সার্ক আবহাওয়া গবেষণা কেন্দ্রকে একীভূত করে নতুন এই কেন্দ্র গঠন করার জন্য করার সুপারিশ করা হয়েছে। একই সঙ্গে বন্ধ করা হচ্ছে তিনটি কেন্দ্র।

শনিবার অনুষ্ঠিত সার্কের ৪৯তম প্রোগ্রামিং কমিটির বৈঠকে অংশগ্রহণকারী দেশ সমূহের মধ্যে থেকে এই সুপ‍ারিশ করা হয়।

নেপালের সোয়াল্ট্রি এলাকার হোটেল ক্রাউন প্লাজায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ১৮তম সার্ক সম্মেলনের এটিই প্রথম আনুষ্ঠানিক বৈঠক। এর মাধ্যমেই শুরু হয় এবারের সার্ক সম্মেলন। বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন নেপাল সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ইওগা বাহাদুর হামাল। বৈঠকটি মূলত সদস্য রাষ্ট্র সমূহের যুগ্ম-সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে। এ বৈঠকে বাংলাদেশ দলের নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সার্ক ও বিমসটেক বিভাগের মহাপরিচালক আব্দুল মোতালেব সরকার।

প্রোগ্রাম কমিটির সুপারিশ রোববার স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে।

স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে আলোচনা পর্যালোচনা শেষে তা উপস্থাপন করা হবে সার্ক কাউন্সিল মন্ত্রীদের সেশনে। সেখান থেকে আলোচনার বিষয়বস্তু যাবে সার্ক শীর্ষ নেতাদের বৈঠকে। সার্ক শীর্ষ নেতাদের আলোচনার পরে মূলত সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হবে।

২৩ ও ২৪ তারিখে হবে স্ট্যান্ডিং কমিটির ৪১তম সেশন। ২৫ তারিখে অনুষ্ঠিত হবে সার্কের কাউন্সিল মন্ত্রীদের ৩৬তম সেশন। ২৬ ও ২৭ নভেম্বর হবে সার্ক শীর্ষ নেতাদের বৈঠক। এই বৈঠকেই আলোচনার পরে নির্ধারিত হবে সার্ক সদস্যদের আগামী এক বছরের পথচলা।

‘শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য গভীর সংযোগ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা বা সাউথ এশিয়ান এসোসিয়েশন ফর রিজিওনাল কো-অপারেশন (সার্ক) এর ১৮তম সম্মেলন।

বৈঠকে অংশ নেওয়া সার্ক সচিবালয় সূত্র জানায়, বৈঠকে সার্কের তথ্য, সার্কের বিদ্যমান ৪টি কেন্দ্রকে একীভূত করে সার্ক পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র নামে নামকরণ করার এবং ৩টি কেন্দ্র তথ্য, মানবসম্পদ উন্নয়ন এবং নথি সংগ্রহ। এই তিন কেন্দ্র বন্ধ করার সুপারিশ করা হয়েছে।

সার্কের বনায়ন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, উপকূলীয় ব্যবস্থাপনা অঞ্চল এবং সার্ক আবহাওয়া গবেষণা কেন্দ্রকে একীভূত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। একীভূত করার তালিকায় স্থান পাওয়া সার্ক আবহাওয়া গবেষণা কেন্দ্র রয়েছে ঢাকায়। ফলে নতুন কেন্দ্রটি ঢাকায় স্থাপন করার জন্য বাংলাদেশ দলের পক্ষ থেকে জোড়ালো দাবি জানানো হয়।

বর্তমানে সার্কের ১১টি কেন্দ্র রয়েছে। কেন্দ্রগুলো হল; কৃষি, আবহাওয়া গবেষণা, যক্ষা, নথি সংগ্রহ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, উপকূলীয় অঞ্চল ব্যবস্থাপনা, জ্বালানি, তথ্য, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা এবং বনায়ন কেন্দ্র। এর মধ্যে সার্ক কৃষি কেন্দ্র এবং মেট্রোলজিক্যাল (আবহাওয়া গবেষণা) কেন্দ্র রয়েছে ঢাকায়।

তৃতীয় বারের মত সার্ক সম্মেলনের আয়োজন করছে কাঠমান্ডু। ১৯৮৭ সালে প্রথম এবং দ্বিতীয়বার ২০০২ সালে সার্ক সম্মেলনের আয়োজন করেছিল দেশটি। নেপালের রাষ্ট্রীয় গৃহসভা (ন্যাশনাল সিটি হল) ভীরুকুটি মান্ডবে অনুষ্ঠিত হবে এবারের সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের মূল আয়োজন। সর্বশেষ সার্কের ১৭তম সম্মেলনটি হয়েছিল মালদ্বীপের আদ্দু সিটিতে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ সমূহের মধ্যে আঞ্চলিক সহযোগিতা এবং যোগাযোগ ও সম্পর্ক বৃদ্ধির জন্য ১৯৮৫ সালে যাত্রা শুরু হয় সার্কের। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ছিলেন এর উদ্যোক্তা। বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ এবং শ্রীলঙ্কা এই সাত রাষ্ট্র নিয়ে গঠিত হয়েছিল আঞ্চলিক এ সংস্থাটি। ২০০৭ সাল থেকে আফগানিস্তান সার্কে যোগ দেয়। বর্তমানে আফগনিস্তানসহ মোট ৮টি দেশ সার্কের সদস্য রাষ্ট্র।

সার্কের বর্তমান বয়স ২৯ বছর। চীন, জাপান, ইরান, মায়ানমার, অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, বর্তমানে সার্কের পর্যবেক্ষক সদস্য।

তবে এবারের সম্মেলনে দক্ষিণ আফ্রিকা অতিথি রাষ্ট্র হিসেবে যোগদান করবে বলে জানিয়েছে নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

You Might Also Like