বান্ধবীকে ফ্ল্যাটে নিয়ে ধর্ষণ, অতঃপর হত্যার হুমকী

ভারতের গুরুগাঁয়ের চার বন্ধু মিলে ধর্ষণ করেছেন তাদেরই আরেক বান্ধবীকে। গত রবিবার রাতে নির্যাতিতা ওই কিশোরীকে (১৭) তার বাড়ির সামনে থেকে একটি ফ্ল্যাটে নিয়ে যান অভিযুক্ত চার বন্ধু। এরপর সারারাত ধরে চলে ধর্ষণ। পরে সোমবার সকালে ওই নারীকে তার বাড়িতে পৌছে দেন এবং এই ঘটনা জানাজানি হলে তাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকী দেন অভিযুক্তরা।

সোমবার সকাল ৮টা নাগাদ নির্যাতিত ওই নারী ওমেন্স হেল্পলাইনে ফোন করেন এবং পুলিশ তার বাড়িতে গিয়ে অভিযোগ শুনে নেন। ধর্ষণ কিনা নিশ্চিত হতে তাকে মেডিকেল টেস্ট করা হয়েছে।

গতকাল রাতে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অভিযুক্ত তিনজনের মধ্যে একজন দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী ও মেয়েটির বন্ধু এবং অপর দুজনের সঙ্গে মেয়েটির ফোনে কথা হতো বলে জানায় পুলিশ। এদের মধ্যে একজন অপ্রাপ্তবয়স্ক এবং একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। তৃতীয়জন একটি হোটেলে কাজ করে এবং চতুর্থজন পলাতন। একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছাড়া বাকিদের বয়স ১৯ থেকে ২৩-য়ের মধ্যে।

নির্যাতিত ওই কিশোরী এবং অভিযুক্ত বন্ধুর বাসা একই এলাকায়। এমনকি যে বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে সেটিও ওই এলাকাতেই। তবে যে ওই ফ্ল্যাটের মালিক কে, সেই সম্পর্কে পুলিশ কিছু জানায়নি।

অভিযোগে ওই কিশোরী বলেন, ‘তিনি একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। রবিবার মধ্যরাতে তিনি ফোনে ওয়াই-ফাই সংযোগের জন্যে বাড়ির বাইরে এসেছিলেন। ওই সময় তিনি দেখতে পান তার বন্ধুসহ আরও তিনজন গাড়ি নিয়ে তাদের বাড়ির সামনে দিয়ে যাচ্ছে। বন্ধুকে দেখে কথা বলতে এগিয়ে আসে ওই কিশোরী। কিন্তু তার বন্ধু গাড়ি থেকে নেমে টেনে ওই কিশোরীকে গাড়িতে উঠিয়ে নেয়। এরপর ওই ফ্ল্যাটে নিয়ে চারজন মিলে ধর্ষণ করেন এবং সকালে বাড়ির সামনে নামিয়ে দিয়ে যান। এমনকি কাউকে কিছু জানালে তাকে হত্যা করার হুমকীও দিয়েছিলো অভিযুক্ত বন্ধুটি।

এদিকে রাতেই ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা তাকে খুঁজতে স্থানীয় পুলিশের কাছে গিয়েছিলেন।

You Might Also Like