স্বাধীনতার পক্ষে কাতালানদের রায়

স্পেন থেকে পৃথক হয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের পক্ষে রায় দিলেন কাতালোনিয়ার বাসিন্দারা। গত রোববারের অনানুষ্ঠানিক গণভোটে ৮০ শতাংশের বেশি মানুষ স্বাধীনতার পক্ষে রায় দেন।

কাতালোনিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট জোয়না ওর্তেগা বলেন, ২০ লাখের বেশি লোক ভোট দিয়েছেন। এরমধ্যে ৮০ দশমিক ৭২ শতাংশ স্বাধীনতার পক্ষে ভোট পড়ে।

স্বাধীনতাকামী কাতালান নেতা আতুর ম্যাস বলেন, এ ভোট আনুষ্ঠানিক গণভোট আয়োজনে শক্তি ও সফলতা জোগাবে।

ম্যাস আরো বলেন, জনগণের এ প্রচেষ্টা ঐতিহাসিক সফলতা, যা একটি পরিপূর্ণ গণভোট আয়োজনে ভূমিকা রাখবে। আমরা গণভোট আয়োজনের অধিকার অর্জন করেছি। আরেকবার প্রমাণিত হলো কাতালনারা নিজেরা স্বাধীনভাবে থাকতে পছন্দ করেন।

যদিও স্বশাসিত কাতালোনিয়ায় গণভোটের ব্যপারে আগেই সর্তক করেছিল স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার। এমনকি রোববারের এ ভোটগ্রহণ চলাকালে দেশটির সাংবিধানিক আদালত রায় দেন, কাতালানরা যদি এ ভোটের মাধ্যমে উৎসাহী হয়ে আনুষ্ঠানিক গণভোটের আয়োজন করে তাহলে সেটি অবৈধ হবে।

স্পেনের আইনমন্ত্রী রাফায়েল কাতালা এ ভোটকে অকার্যকর ও অপ্রয়োজনীয় বলে খারিজ করে দিয়েছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতাকামী নেতারা মিথ্যা প্রচরণা চালাচ্ছেন। সরকার যেকোনো ধরনের গণতন্ত্রের ন্যায্যতা নিশ্চিত করে যাচ্ছে। ভবিষ্যতেও করে যাবে।’

কয়েক সপ্তাহ আগে স্কটল্যান্ডকে দেখে উৎসাহী হয়ে আনুষ্ঠানিক গণভোটের ঘোষণা দেন কাতালানরা। কিন্তু ওই গণভোট সংবিধানের পরিপন্থী উল্লেখ করে তার ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করেন দেশটির সাংবিধানিক আদালত।

জনমত জরিপে দেখা গিয়েছিল, ৮০ শতাংশ কাতালানরা এ অনানুষ্ঠানিক গণভোটের পক্ষে আর ৫০ শতাংশ জনগণ পুরোপুরি স্বাধীনতা পক্ষে রয়েছেন।

একক রাষ্ট্রের পক্ষে থাকা স্পেনের রাজনৈতিক দলগুলো জানিয়েছে, এ গণভোট স্থানীয় ব্যক্তিরা আয়োজন করেছে। তাই এ ভোটের কোনো বৈধতা নেই।

ভোটে জয়ের পর কাতালোনিয়ার রাজধানী বার্সেলোনায় স্বাধীনতাকামী মানুষ বিশাল আনন্দ মিছিল বের করেন। স্বাধীনতার জন্য পূর্ণ ও সত্যিকারের একটি গণভোট আয়োজনের দাবি জানান তারা।

You Might Also Like